প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নতুন মুখ প্রতিযোগিতা নিয়ে দোটানায় চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি

ইমরুল শাহেদ : নতুন মুখ প্রতিযোগিতার ঘোষণা দিয়ে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি এখন বেশ দ্বিধা-দ্বন্দ্বে রয়েছে। বলা যায় তারা জটিলতায়ই আছেন। প্রচারণার দায়িত্ব যারা নিয়েছিলেন তারা পিছিয়ে গেছেন। মিডিয়া পার্টনার হিসেবে হিসেবে টিভি চ্যানেলটিও আর পরিচালক সমিতির এই উদ্যোগের সঙ্গে নেই। তাই সবকিছু নিজেদের মতো করে করতে হচ্ছে তাদের। এছাড়া একদিকে জাতীয় নির্বাচন, আরেকদিকে পরিচালক সমিতির নির্বাচনও আসন্ন। এই নিয়ে সমিতি দোটানায় রয়েছে। সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন, ‘আসলে আমরা এখনই কিছু বলতে পারছি না। আমাদের মিটিং আছে। সেখানেই আমরা সিদ্ধান্ত নেবো।’

ইতিপূর্বে গুলজার বলেছিলেন, নতুন মুখ প্রতিযোগিতার জন্য কিভাবে আবেদন করতে হবে এবং নাম নথিভুক্ত করার জন্য কত টাকা ফি দিতে হবে তা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানানো হবে। পরিচালক সমিতির পূর্বপরিকল্পনা অনুসারে এতোদিনে ওয়েবসাইট চালু হয়ে যাওয়ার কথা। একজন পরিচালক বলেন, এই কমিটি নতুন মুখ প্রতিযোগিতার কথা বলে ঝিমিয়ে পড়া চলচ্চিত্র শিল্পে একটা ঝাঁকুনি দিতে চেয়েছিলো। কিন্তু সেটা তারা করতে পারেনি। নির্বাচনও কাছাকাছি চলে এসেছে। সম্ভবত তাদের পক্ষে আর বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না।

চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির নির্বাচন ডিসেম্বরেই হয়ে যাওয়ার কথা। সে অনুসারে তারা প্রস্তুতিও নিচ্ছেন। প্যানেল তৈরির তোড়জোড়ও চলছে। পরিচালক হোসেইন আনোয়ার জানালেন, এবারের নির্বাচনে তিনটি প্যানেল হবে বলে মনে হচ্ছে। একটি প্যানেল হবে বর্তমান কমিটি থেকে। সে প্যানেলটি দিবেন মুশফিকুর রহমান গুলজার ও বদিউল আলম খোকন। আরেকটি প্যানেল দেবেন শাহ আলম কিরণ ও সাফিউদ্দিন সাফি।

তৃতীয় প্যানেলটি হবে বাদল খোন্দকার ও বজলুর রাশেদ চৌধুরী। বাদল খোন্দকার বর্তমানে জাতীয় পার্টির সঙ্গেও যুক্ত আছেন। চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির নির্বাচনকে সামনে রেখে সমিতির স্টাডি রুম সংস্কারের কাজ চলছে। নির্বাচন কেন্দ্রিক পরিচালকরা এদিক-ওদিক বসে তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে প্রত্যেক পরিচালকই এখন প্যানেল গোছানোর কাজে ব্যস্ত। নতুন মুখের ভাবনা এখন আর কারো মাথায় নেই। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ