প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইসি অনুমতি দিলে সরকারি স্কুলের ভর্তি পরীক্ষা ডিসেম্বরে

ডেস্ক রিপোর্ট : শিক্ষা মন্ত্রণালয় জাতীয় নির্বাচনের তফসিল পুনর্নির্ধারিত হওয়ায় সরকারি স্কুলের ভর্তি পরীক্ষা কবে নেওয়া যাবে তার তারিখ চূড়ান্ত করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে দ্বারস্থ হতে হচ্ছে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ওপর। নির্বাচন অনুষ্ঠিত না হওয়া পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করা যাবে না, ইসির এমন নিষেধাজ্ঞা থাকলেও নির্বাচনের আগে অর্থাৎ ডিসেম্বরের মধ্যেই এ পরীক্ষা সম্পন্ন করার অনুমতি চেয়ে মঙ্গলবার (১৩ নভেম্বর) ইসিকে চিঠি দেবে শিক্ষামন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয় সূত্রে এমন তথ্য জানা গেছে।

জানতে চাইলে মাউশি পরিচালক অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, ‘ইসির নির্দেশনামতো বার্ষিক পরীক্ষা এগিয়ে আনা হয়েছে। ১০ ডিসেম্বরের মধ্যেই দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক পরীক্ষা শেষ করা হবে। তবে, যেহেতু পুনঃতফসিলে ৩০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণের কথা বলা হয়েছে ফলে আমরা চেষ্টা করবো ডিসেম্বরের ভেতরেই ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া যায় কি না। এভাবেই ইসিকে চিঠি দেওয়া হবে।‘

ঢাকার ৪১টি সরকারি বিদ্যালয়ে আসন আছে ১২ হাজার ৩৬৬টি

ঢাকার ৪১ টি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে মোট আসন ১২ হাজার ৩৬৬ টি। এর মধ্যে ১৭ টি উচ্চ বিদ্যালয়ে ১ ম শ্রেণিতে আসন রয়েছে ১ হাজার ৯৬০ টি। এছাড়া ২য় শ্রেণিতে ৮৪৯টি, ৩য় শ্রেণিতে ২ হাজার ১২৬টি, ৪র্থ শ্রেণিতে ৮২২টি, ৫ম শ্রেণিতে ৮৪৯টি, ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ৩ হাজার ৫৫৭টি, ৭ম শ্রেণিতে ৭৩৮টি, ৮ম শ্রেণিতে ৯৯৭টি এবং ৯ম শ্রেণিতে ৪৬৮টি আসন রয়েছে।

ভর্তি পরীক্ষার তারিখ চূড়ান্ত হলে এসব আসনে সূচি অনুযায়ী ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের কারণে প্রথমবারের মতো ১ ম শ্রেণিতে ভর্তির জন্য লটারির দিন সব স্কুলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হবে। এর আগে ১ ডিসেম্বর থেকে ১৩ ডিসেম্বর মধ্যরাত পর্যন্ত অনলাইনে ভর্তির আবেদন নেওয়া হবে। এর বাইরে আরও ৩ টি হাইস্কুলে এবার প্রথমবারের মতো শিক্ষা কর্যক্রম শুরু করা হবে। ওইসব প্রতিষ্ঠানের আসন সংখ্যা এখন পর্যন্ত ঠিক হয়নি।

এবছরও রাজধানীর সরকারি হাইস্কুলগুলো তিনটি গ্রুপে ভাগ করে ভর্তি কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। ৪১ টি হাইস্কুলের মধ্যে ‘এ’ এবং ‘বি’ গ্রুপে ১৪ টি করে এবং ‘সি’ গ্রুপে ১৩ টি উচ্চ বিদ্যালয় রয়েছে।

মাউশি সূত্রে জানা গেছে, মাউশি ইতোমধ্যে ঢাকার ৮১ হাইস্কুলে ভর্তির বিস্তারিত রোডম্যাপ চূড়ান্ত করেছে। এবারও ভর্তির আবেদন ফি ১৭০ টাকা। টেলিটকের মাধ্যমে অনলাইন আবেদন নেওয়া হবে। এবারও স্কুলে ভর্তির ক্ষেত্রে মোট আসনের ৫৯ শতাংশ কোটা রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে-‘এলাকা’, ‘সরকারি প্রাইমারি স্কুল’,‘মুক্তিযোদ্ধা’,‘প্রতিবন্ধী’ ও ‘শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারী’ কোটা। ঢাকা মহানগর এবং ঢাকার বাইরের প্রায় সাড়ে ৩ শ’ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ভর্তি কার্যক্রম আলাদাভাবে সম্পন্ন হবে।

প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি করা যাবে সেসব স্কুলে :

ভর্তি নীতিমালা অনুযায়ী, প্রথম শ্রেণির ভর্তিতে শিক্ষার্থীর বয়স জানুয়ারিতে ছয় বছরের বেশি হতে হবে। প্রথম শ্রেণিতে শিক্ষার্থী নেওয়া স্কুলগুলোর মধ্যে রয়েছে, আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ,ধানমন্ডি গভ. ল্যাবরেটরি উচ্চবিদ্যালয়, ধানমন্ডি গভ. বয়েজ উচ্চ বিদ্যালয়, ধানমন্ডি গভ. বয়েজ উচ্চ বিদ্যালয়ের ফিডার শাখা, তেজগাঁও বালক উচ্চ বিদ্যালয়, তেজগাঁও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, শেরেবাংলা নগর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়, শেরেবাংলা নগর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, মতিঝিল বালক উচ্চ বিদ্যালয়, খিলগাঁও সরকারি হাইস্কুল, খিলগাঁও সরকারি হাইস্কুলের ফিডার শাখা, নারিন্দা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, বাংলাবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারি বিজ্ঞান কলেজ সংযুক্ত উচ্চ বিদ্যালয়, মোহাম্মদপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও গণভবন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়।

সূত্র : বাংলাট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ