প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হুমকির মুখে ফসলি জমি
ফুলবাড়ীতে অবৈধভাবে চলছে বালু উত্তোলন

মো. রজব আলী , ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে কৃষি জমির কোল ঘেষে গাছ-পালাসহ ফসলী জমি নষ্ট করে চলছে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন। বালু উত্তোলনকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় কিছুই করতে পারছেনা ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে,উপজেলার খয়েরবাড়ী জমিদার পাড়ার সন্নিকটে মধুপুর ঘাটে গাছপালাসহ ফসলি জমির ধার কেটে স্কেবেটার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে উত্তোলন করছে বালু। বালু উত্তোলনের ফলে হুমকির মুখে পড়েছে সাধারণ কৃষকের নদীর ধারের ফসলি জমি। এভাবে অসাধু বালু খোঁকেদের বালু উত্তোলনের ফলে ফসলি জমি গুলো ধ্বংসের মুখে পড়লেও, কোন কথাই বলতে পারছেনা সাধারণ কৃষকরা। ভুক্তভোগীরা বলছে বালু উত্তোলনকারীরা ক্ষমতাসীন দলের অনুসারী ও প্রভাবশালী হওয়ায় তারা কোন কথা বলতে পারছেনা।

বালু উত্তোলন করায় ফসলি জমি হুমকিতে পড়ায় জমির মালিক খয়েরবাড়ী গ্রামের মৃত হীরেন্দ্র নাথে প্রদীপ চৌধুরী ও দীপেন চৌধুরী বলেন, বালু উত্তোলনকারীদের বার বার নিষেধ করলেও তারা তাদের কোন কথাই কর্ণপাত করছেনা।

এই বিষয়ে বালু উত্তোলনকারী খয়েরবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা বেনজির হোসেন ডিটুর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটের পুর্বেই রাস্তার কাজ শেষ করার জন্য, তিনি স্থানীয় সংসদ সদস্যের নির্দেশে এই বালু উত্তোলন করছেন বলে দাবি করেন। তবে বালু উত্তোলনকারী বেনজির হোসেন ডিটুর এই কথার কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি।

এঅবস্থা শুধু মধুপুর নয়, উপজেলার অম্রবাড়ী, লক্ষিপুর ও হড়হড়িয়া পাড়া ঘাটেও চলছে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন। জানা গেছে খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের আওয়ামী যুবলীগের নেতা মুরাদ হোসেনও অম্রবাড়ী ঘাট থেকে বালু উত্তোলন করছে। বিষয়টি নিয়ে অবৈধ বালু উত্তোলনকারী মুরাদ হোসেনের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, ওখানে তার নিজের জায়গা রয়েছে সেখান থেকে তিনি বালু উত্তোলন করছে বলে তিনি দাবি করেন। তিনি বলেন, নির্ধারিত ঠিকাদারের কাছেথেকে বালু ক্রয় করে যাতায়াত খরচ অনেক বেশী হয় তাই এখান থেকে বালু উত্তোলন করছেন।

এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন স্থানে দীর্ঘদিন থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করলেও প্রশাসনের কোন প্রকার নজরদারি দেখা যায়নি।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের ছোট যমুনা নদীর বেলতলি ও গোপালপুর ঘাট বালুমহল হিসেবে ইজারা দেয়া আছে। এর বাহিরে বালু উত্তোলন করা সম্পূর্ণ বে-আইনি। তিনি বে-আইনিভাবে বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে শীঘ্রই ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ