প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রয়াত ভারতের সার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী অনন্ত কুমার,রাজনৈতিক মহলে শোকের ছায়া

আশিস গুপ্ত ,নয়াদিল্লি : প্রয়াত ভারতের রাসায়নিক, সার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী ও বিজেপি’র নেতা অনন্ত কুমার রবিবার রাত ২টায়  শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনদিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছে কর্নাটক সরকার। সোমবার সব স্কুল, কলেজে ছুটি ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৫৯ বছর বয়সেই মারা গেলেন অনন্ত কুমার। বেশ কিছুদিন ধরেই ভুগছিলেন তিনি।

রবিবার রাতে বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। দীর্ঘ দিন ধরেই ক্যানসারে আক্রান্ত ছিলেন অনন্ত কুমার। গত মাসেই নিউইয়র্কে চিকিৎসা করিয়ে দেশে ফেরেন মন্ত্রী। তারপর থেকেই বার বার অসুস্থ হয়ে পড়তেন। রবিবার রাতেই স্ত্রী তেজস্বিনী ও দুই মেয়ে অনন্ত কুমারকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। রাত ২টায় অন্তত কুমারের মৃত্যুর খবর আসে। সোমবার বেঙ্গালুরুর ন্যাশনাল কলেজে শায়িত থাকে অনন্ত কুমারের মরদেহ। সেখানেই তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানান সাধারণ মানুষ থেকে বিশিষ্টরা।

১৯৮৭ সালে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেওয়ার আগে ১৯৮৫ সালে অনন্ত কুমার আরএসএস-র ছাত্র সংগঠন এবিভিপি’র রাজ্য সম্পাদকের পদে নির্বাচিত হন। পরে সর্বভারতীয় সম্পাদকও হন। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর ১৯৯৫ সালে অনন্ত কুমার কেন্দ্রীয় সম্পাদক হিসেবে নিযুক্ত হন। ১৯৯৬ সালে প্রথমবার লোকসভায় সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হন বেঙ্গালুরু দক্ষিণ আসন থেকে। রেল ও শিল্প মন্ত্রকের অধীনে বিভিন্ন কমিটির সদস্যও ছিলেন। ১৯৯৮ সালে অটল বিহারী সরকারের আমলে তাঁকে অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। বাজপেয়ী জমানার তিনিই ছিলেন সবথেকে তরুণ মন্ত্রী।মন্ত্রীর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ রাজনৈতিক মহল।

শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি থেকে প্রধানমন্ত্রী। শোকপ্রকাশ করেছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। কর্ণাটকের রাজনীতিতে অনন্ত কুমারের অবদান অনস্বীকার্য বলে জানিয়েছেন কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী। ১৯৯৬ সাল থেকে দক্ষিণ বেঙ্গালুরু কেন্দ্র সামলাচ্ছিলেন অনন্ত কুমার। ২০১৪ সাল থেকে কেন্দ্রীয় সেচ ও কৃষি মন্ত্রী ও ২০১৬ সাল থেকে সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী ছিলেন তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ