Skip to main content

লামায় প্রাথমিকের ১৪ সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পদায়ন

মো. নুরুল করিম আরমান, লামা প্রতিনিধি: বান্দরবানের লামা উপজেলা প্রাথমিকের ১৪ জন সহকারী শিক্ষক-শিক্ষিকাকে প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব দিয়ে পদায়ন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনক্রমে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের পদায়ন করে অফিস আদেশও জারি করেছে। এতে করে বিদ্যালয়গুলোর প্রশাসনিক জটিলতা অনেকাংশে কমে যাওয়ার পাশাপাশি বিদ্যালয়গুলোতে লেখাপড়ার মান বৃদ্ধি পাবে। তবে উপজেলায় আরও ৯টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ খালি রয়েছে। এসব প্রধান শিক্ষকের পদে পিএসসি সরাসরি নিয়োগ প্রদান করবে বলে প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানিয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, লামা উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে সর্বমোট ৮৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ৬২টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক থাকলেও ২৩টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য ছিল। এতে শিক্ষার্থীদের পাঠদানসহ ওইসব বিদ্যালয় পরিচালনায় প্রশাসনিক জটিলতা দেখা দিলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তরের প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় উপজেলার ১৪জন সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে। চলতি দায়িত্ব প্রদানকে পদোন্নতি হিসেবে গণ্য করা যাবে না বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়। মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনের পর বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের অনুমোদনের ভিত্তিতে বান্দরবান জেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিস লামা উপজেলার ১৪জনসহ জেলার সর্বমোট ৬৫ জন শিক্ষককে ৬৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পদায়ন করে অফিস আদেশ প্রদান করেন। আগামী ১৫ নভেম্বরের মধ্যে পদায়নকৃত বিদ্যালয়ে চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক শিক্ষিকাকে যোগদান করার অফিস আদেশও প্রদান করা হয়। পদায়নকৃত শিক্ষকরা হলেন, ক্যচিংমে মার্মা, কোহিনুর আক্তার, জিন্নাত জহুরা, মো. নাজেম উদ্দিন, মরিয়ম বেগম, শাহেনা আক্তার, শহিদা বেগম, শামিমা আক্তার, হাজেরা বেগম, থোয়াইনু মার্মা, রাসেল দাশ, ময়ইচিং মার্মা, আবু অহিদ, মো. ইব্রাহিম। সহকারী শিক্ষককে পদায়নের সত্যতা নিশ্চিত করে বান্দরবান জেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শহীদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদে বিভাগীয়ভাবে লামা উপজেলার ১৪ জনসহ জেলার সর্বমোট ৬৫জন সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব পদে পদায়ন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এতে করে বিদ্যালয়গুলোর প্রশাসনিক জটিলতা অনেকাংশে কমে যাওয়ার পাশাপাশি বিদ্যালয়গুলোতে লেখাপড়ার মান বৃদ্ধি পাবে। অবশিষ্ট ৯টি প্রধান শিক্ষকের পদে পিএসসি সরাসরি নিয়োগ প্রদান করবেন বলেও জানান তিনি।

অন্যান্য সংবাদ