প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশের ঘুরে দাঁড়ানোর মিরপুর টেস্ট রোববার

এল আর বাদল : বাংলাদেশ দলের কোচ, ক্যাপ্টেন এমনকি টিম ম্যানেজমেন্টও বিশ্বাস করে মিরপুর টেস্টে ঘুরে দাঁড়াবে টাইগাররা। মাঠের খেলায় এমন আত্মবিশ্বাসের সুর সব সময়ই ছিলো টাইগারদের গলায়। ওয়ানডে সিরিজে জিম্বাবুয়েকে স্রেফ উড়িয়ে দেওয়া বাংলাদেশের গলায় আত্মবিশ্বাসের সুর বাজছিলো, সিলেট টেস্টে দারুণ এক জয় পাবার। কিন্তু প্রত্যাশা আর প্রাপ্তির মধ্যে যে যোজন যোজন ফারাক, সেটা প্রমাণ করেই সিলেট টেস্টে ব্যর্থতার গ্লানি নিয়ে মাঠ ছাড়লো টাইগারা। ওই টেস্টে জয় না পেলেও তাদের গলার জোর কিন্তু একটুও কমেনি। প্রথম টেস্টের সেই আত্মবিশ্বাসের রেকর্ডটাই যেনো বাজছে দ্বিতীয় টেস্ট ঘিরে।

রোববার সকাল ১০টায় মিরপুরে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ের মধ্যে দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট। প্রথম টেস্ট জিতে বেশ ফুরফুরে মজোজে আছে জিম্বাবুয়ে। দ্বিতীয় টেস্ট জিতে তারা বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করার স্বপ্ন দেখছে। সঙ্গত কারণে দলপতি হেমিল্টন মাসাকাদজার গলায় বেশ জোর।

প্রথম টেস্ট জিতে সিরিজ জয়ের পথে অনেক দূর এগিয়ে তারা। এ অবস্থায় স্বাগতিকদের হোয়াইটওয়াশ করার স্বপ্ন দেখা অবাস্তব নয়। প্রশ্ন হচ্ছে টাইগারদের নিয়ে। জিম্বাবুয়ের মোকাবিলায় তারা কতটা প্রস্তুত। ঘুরে দাঁড়ানোর স্লোগান তো নতুন নয়। এক ম্যাচ হারলে পরের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় সব সময়ই ব্যক্ত করে থাকে টাইগার সেনারা। রোববার দ্বিতীয় টেস্ট নিয়ে অনেক কিছু ভাবতে হচ্ছে টাইগারদের। যে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে টেস্ট আর ওয়ানডে সিরিজ জয়ের গল্প গেথেছিলো টাইগাররা, কাল তাদের বিরুদ্ধে সিরিজ ড্র করতে যার পরনাই মরিয়া সবাই।

এবারের বাংলাদেশ সফরটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে জিম্বাবুয়ের কাছে। ১৭ বছর পর অর্থাৎ ২০০১ সালের পরে ঘরের বাইরে জিম্বাবুয়ের প্রথম টেস্ট জয়। আর সেটা আসলো বাংলাদেশের মাটিতে স্বাগতিকদের হারিয়ে।

সাম্প্রতিক ফর্মের বিচারে তুলনামূলক দুর্বলই ছিলো জিম্বাবুয়ের দলটি। কিন্তু সিলেটে দেখা যায়নি সে ছাপ। রীতিমতো ফেবারিটের তকমা গায়ে নিয়ে ভরাডুবি হয়েছে বাংলাদেশের। ভালো খেলার লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে বাজিমাত করেছে জিম্বাবুয়ে। মিরপুর স্টেডিয়ামেও সেই চিত্রটাই আবার তুলে ধরতে চায় জিম্বাবুয়ে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ