প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

১০ দিনেও কেউ খোঁজ নেয়নি সেই বৃদ্ধার

ডেস্ক রিপোর্ট : মাদারীপুর সদর হাসপাতালে গত ১০ দিন ধরে  থাকা এক  বৃদ্ধা মা জোবেদা খাতুনের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটেছে। মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন তিনি। ৭০ বছরের এই বৃদ্ধার খোঁজ নিতে কেউ আসেনি এখনো।

চিকিৎসক ও নার্সরা জানান, কিছুটা স্মৃতিশক্তি হারানো বৃদ্ধা হাসপাতালে ভর্তির পর মাঝেমধ্যে ইশারা দিয়ে কথা বললেও গতকাল সকাল থেকে কোনো সাড়া-শব্দ নেই তার।

গত ৩১ অক্টোবর গভীর রাতে তার সন্তানেরা শহরের শকুনি লেকপাড়ের রাস্তায় গভীর রাতে ফেলে রেখে যায় জোবেদা খাতুনকে। পর দিন ১ নভেম্বর সকালে সরকারি নাজিমউদ্দিন কলেজের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী বিলাস হালদার ও মেহেদী ইসলাম তাকে হাতে-মাথায় রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেদিন এই বৃদ্ধা নিজের নাম আর সন্তান-বউ মিলে তাকে ফেলে রেখে যাওয়ার কথাটুকুই শুধু বলতে পেরেছিলেন।

গতকাল সকালে হাসপাতালে গিয়ে ওই বৃদ্ধাকে বিচানায় ঘুমিয়ে থাকতে দেখা গেছে।

দায়িত্বরত নার্স পারভিন জানান, যখন বৃদ্ধা মাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিলো, তার চেয়ে আজ (গতকাল) শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। ভর্তির পরে এক দিন স্বামীর নাম অজয় মল্লিক, ছেলেদের নাম আলমগীর ও সোবাহান বলেছিলেন। তবে বাড়ি কোথায় তা বলতে পারেননি। এরপর থেকে আর কথা বলেননি। ইশারা দিয়ে মাঝেমধ্যে কিছু বলার চেষ্টা করছিলেন। আজ সকাল থেকে কোনো ইশারাও দিচ্ছেন না।

মাদারীপুরের সিভিল সার্জন ডা. ফরিদ উদ্দিন বলেন, ‘হাসপাতালে ভর্তির পর থেকে বৃদ্ধা মা আমাদের তত্ত্বাবধানে আছেন। আজ সকাল থেকে শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে অবনতি হয়েছে। আমরা সঠিকভাবেই তার চিকিৎসা চালাচ্ছি। পরিবারের কেউ এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে আসেনি।’

মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, ‘এখনো বৃদ্ধার পরিচিত কেউ আসেনি। তার সন্তানেরা যদি এখনো তাদের মাকে নিয়ে গিয়ে সেবাযত্ন করতে চায়, আমাদের কোনো অভিযোগ নেই। এ ছাড়া যদি কোনো হৃদয়বান ব্যক্তিও বৃদ্ধাকে নিতে চান, তাহলে তার জিম্মায় দেয়া হবে। আমরা প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা দেয়ার চেষ্টা করছি।’

সূত্র : ঢাকাটাইমস

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ