Skip to main content

বি বাড়িয়ায় নিজামুদ্দীন অনুসারীদের উপর মাদরাসা ছাত্রদের হামলা

ডেস্ক রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে তাবলীগ জামায়াতের দুই গ্রুপ কওমি মাদ্রাসা ও মাওলানা সাদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছেন। এ সময় মাদরাসা ছাত্ররা কাফনের কাপড় পরে সংঘর্ষে অংশ নেয়। জানা যায়, তাবলীগের বিবাদমান দু পক্ষের কার্যক্রম চালানোর জন্য তিনদিন করে ভাগ করে দেওয়া হয়। স্থানীয় প্রশাসনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক শুক্রবার বিকেল থেকে সোমবার পর্যন্ত মার্কাজ মসজিদে নিজামুদ্দীন অনুসারীরা থাকবে। কিন্তু অাগে থেকেই ঘোষনা দিয়ে মার্কাজ মসজিদ দখলে রাখে অালমীশুরাপন্থীরা। শুক্রবার বিকেলে নিজামুদ্দীন অনুসারী সাথীরা মার্কাজ মসজিদে প্রবেশ করতে গেলে তারা বাধা দেয়। এ সময় মসজিদের ছাদ থেকে মাদরাসা ছাত্ররা নিচে ইটের অাঘাত ছুড়লে সংঘর্ষ শুরু হয়। পরে অাশপাশের বিভিন্ন মাদরাসা থেকে ছাত্ররা যোগ দিলে সংঘর্ষ মারাত্মক রুপ ধারণ করে। বি বাড়িয়া শহরস্থ জামিয়া ইউনুসিয়া মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা অাবদুর রহিমের নেতৃত্বে ছাত্ররা মারামারিতে অংশগ্রহণ করে বলে অভিযোগ করেছেন মার্কাজের দায়িত্বশীলরা। আক্রমণে আহত এতায়েতের সাথী ইতোমধ্যে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। রমজান আলী (৪০) জামাল উদ্দিন (৩৮) ডাঃ নুরুল্লাহ (৩৫) শাহ আলম মেম্বার (৩৫) হাজী আয়েত আলী (৭৩) সহ বেশ কয়েকজন তারা ।  এডভোকেট শাহ আলম সহ বেশ কয়েকজন অাহত হয় পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে কওমি মাদরাসা ও মাওলানা সাদ সমর্থকদের নানা বিষয় নিয়ে মতবিরোধ চলছিল। শুক্রবার বিকালে বিরাসার এলাকার মার্কাজ মসজিদে ঢোকা নিয়ে এক পক্ষ আরেক পক্ষকে বাধা দেয়। এ ঘটনায় উত্তাপ ছড়িয়ে পড়ে উভয়পক্ষের মধ্যে।    

অন্যান্য সংবাদ