প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজধানীতে বিপুল সংখ্যক মাদকসহ আটক ৮

সুজন কৈরী: রাজধানীর মোহাম্মদপুর ও শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে পৃথক অভিযানে ১২ হাজার পিস ইয়াবাসহ ৬ জনকে আটক করেছে র‌্যাব ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর (ডিএনসি)। আটককৃতরা হলো- মো. মাহবুব হওলাদার (২৪), মো. বেলাল (২৬), মো. আলমগীর হোসেন (২৩), মো. রুবেল সরদার (৩০), সাদ জিয়াউল ফারুক (২৪) ও দিয়ার উদ্দিন নাহিদ হাসান (৪১)। এছাড়া রাজধানীর তেজগাঁও এলাকা থেকে ৪৮৬ বোতল ফেন্সিডিলসহ মো. আতাউর রহমান (২২) ও মো. পলাশ (২১) নামের ২জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-২।

শুক্রবার বিকেলে ও বৃহস্পতিবার রাতে তাদের আটক ও মাদক উদ্ধার হয়।

র‌্যাব-২ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মোহাম্মদ সাইফুল মালিক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মোহাম্মদপুর টাউন হলের সামনে অভিযান চালানো হয়। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পাণলানোর সময় বেলাল, আলমগীর ও মাহবুবকে আটক করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ইয়াবা থাকার কথা অস্বীকার করেন। তবে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে ডাইনিং টেবিলের কাঠের পায়ার ভিতরে খোদাই করে বিশেষ কায়দায় কালো কসটেপের সাহায্যে মোড়ানো পলিথিনে লুকিয়ে রাখা ১০ হাজার পিস ইয়াবা থাকার কথা জানান। পরে তা উদ্ধার করা হয়।

আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র‌্যাব কর্মকর্তা জানান, যুবকদের মধ্যে ইয়াবার ব্যাপক চাহিদা থাকায় চড়া দামে বিক্রির উদ্দেশ্যে তারা কক্সবাজার, চট্টগ্রাম ও টেকনাফ সীমান্ত থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করে। পরে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে নিত্য নতুন কৌশল ব্যবহার করে ইয়াবা রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলার মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ করত।

নতুন পদ্ধতিতে এ পর্যন্ত বেশ কয়েকটি ইয়াবার চালান সরবরাহ করেছে তারা। আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

মোহাম্মদ সাইফুল মালিক আরো জানান, বৃহস্পতিবার রাতে পৃথক অভিযানে র‌্যাবের অপর একটি টিম রাজধানীর তেজগাঁওয়ের শাহীনবাগ ফ্যালকন টাওয়ারের গলি থেকে ৪৮৬ বোতল ফেন্সিডিলসহ আতাউর ও পলাশকে আটক করা হয়েছে।

তিনি বলেন, গোপন সংবাদে জানা যায়, রাজশাহী সীমান্ত এলাকা থেকে মাদক দ্রব্য ক্রয় করে ট্রাকে করে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহের জন্য নিয়ে যাচ্ছে। ওই সংবাদের ফ্যালকন টাওয়ারের গলির মাথায় ট্রাকটি আটকের অপেক্ষায় ওৎ পেতে থাকে র‌্যাব সদস্যরা।

ট্রাকটি ঘটনাস্থলে পৌঁছার পর থামার সংকেত দিলে ট্রাক থামিয়ে দৌড়ে পালানোর চেষ্টাকালে ২জনকে আটক করা হয়। প্রথমে অস্বীকার করলেও ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে ট্রাকে থাকা ভুট্টার বস্তার ভিতরে বিশেষ কায়দায় লুকিয়ে রাখা ফেন্সিডিলের কথা স্বীকার করে। পরে ভুট্টার চট ও প্লাষ্টিক বস্তার ভিতরে বিশেষ কায়দায় লুকিয়ে রাখা ফেন্সিডিলের চালানটি উদ্ধার করা হয়।

আটককৃতরা জানিয়েছেন, তারা দীর্ঘ দিন ধরে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখকে ফাঁকি দিয়ে অভিনব পন্থায় নিত্য নতুন কৌশল ব্যবহার করে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সীমান্ত পথে অবৈধভাবে বাংলাদেশে আসা ফেন্সিডিল স্বল্প মূল্যে ক্রয় করে রাতারাতি বড়লোক হবার নেশায় রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে চড়াদামে বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

ডিএনসির গুলশান সার্কেলের পরিদর্শক মো. সামসুল কবির জানান, শুক্রবার বিকেলে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে এপিবিএন-এর সহায়তায় রুবেল, জিয়াউল ও দিয়ার উদ্দিনকে আটক করা হয়। তারা কক্সবাজার থেকে বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে (বিজি ০৪৩৪) ঢাকায় আসেন। তারা বিমানবন্দরের আভ্যন্তরীণ টার্মিনালে আসার পর তাদের আটক করে তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ২হাজার ৫০পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ