Skip to main content

উগান্ডা জাতীয় ক্রিকেট দলে আফ্রিদির ভাতিজা

স্পোর্টস ডেস্ক : আফ্রিকা মহাদেশের ছোট্ট ও অখ্যাত দেশ উগান্ডায় ব্যবসা করতে গিয়েছিলেন শহিদ আফ্রিদিও ভাতিজা ইরফান আফ্রিদি। কিন্তু যে রক্তে মিশে আছে ক্রিকেট সে রক্ত যেখানেই যাক ক্রিকেট তো থাকবেই। হয়েছেও তাই! ঊ্যবসা-বাণিজ্য ছেড়ে ক্রিকেট আঁকড়ে ধরেছেন ভাতিজা আফ্রিদি।। সেটিও আবার উগান্ডায়। পাকিস্তানি ক্রিকেটার শহিদ আফ্রিদির ভাতিজা ইরফান আফ্রিদি এখন মাতাচ্ছেন দেশটির ক্রিকেটে! দুই বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেললেও ইরফান নিজের জাত ছিনিয়েছেন চলতি বছর মালয়েশিয়াতে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগের ডিভিশন ফোরে। ইরফানের ভাষায়, ‘৮০ শতাংশ লেগস্পিন, ১০ শতাংশ অফ-স্পিন ও ১০ শতাংশ ক্যারম বল’ দিয়ে সেই টুর্নামেন্টে ১৫ উইকেট তুলে আলো নিজের দিকে নিয়েছেন। অলরাউন্ডার কেমুথ কামুয়েকার পর আর কোনো আন্তর্জাতিক মানের ক্রিকেটার পায়নি উগান্ডা ক্রিকেট দল। ইরফানের উইকেট শিকারের দক্ষতা আর ধুমধাড়াক্কা ব্যাটিং দেখে এরইমধ্যে তাকে কামুয়েকার কাতারে ফেলেছে উগান্ডাবাসী। ইরফান মানেই এখন তাদের কাছে নিখাদ বিনোদন। দেশটির ক্রিকেট স্টাফ, সতীর্থ ও দর্শকদের কাছ থেকে এখন ভালকিছু করার তাগিদ পান বলে ইএসপিএনকে জানিয়েছেন ইরফান। তিনি বলেন, ‘যতবারই তারা আমাকে চাপ দেয়, ততবারই আমার উপকার হয়। তারা আমাকে বলে আমরা তোমার সঙ্গে আছি, নিজের সর্বোচ্চটা দাও, কঠিন পরিশ্রম করো। দলের প্রত্যেকে আমার পাশে থাকে এবং খুব সাহায্য করে।’ নামের পাশে আফ্রিদি থাকায় এই প্রত্যাশার চাপটা আরও বেড়েছে ইরফানের কাঁধে। উগান্ডাবাসীর কামনা চাচা শহিদ আফ্রিদির মতো যদি একদিন নিজের নামটা আরও উজ্জ্বল করতে পারেন ইরফান। সঙ্গে উজ্জ্বল হবে উগান্ডার নাম-ক্রিকেটও! ভাতিজা উগান্ডায় নাম করছে দেখে শহিদ আফ্রিদিরও বেশ গর্ব হয় বলে জানিয়েছেন ইরফান। ভানুয়াতুর বিপক্ষে ১৭ বলে ৫১ রান করার পর চাচার কাছ থেকে ‘ভালো খেলেছ’ লেখা একটি খুদে বার্তাও পেয়েছেন ভাতিজা আফ্রিদি।