প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বর্তমানে সংকট আরো ভয়াবহ হয়েছে : ফখরুল

সাব্বির আহমেদ : বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, জনগণের রায়ে ফ্যাসিস্ট সরকারের পতন ঘটাতে শপথ নিতে হবে। আন্দোলনের মাধ্যমেই দাবি আদায় করতে হবে। নির্বাচনে সমান মাঠ তৈরি করতে হবে।

শুক্রবার রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট রাজশাহী বিভাগ আয়োজিত সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। সভায় স্থানীয় বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান মিনুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ড. কামাল হোসেন ও প্রধান বক্তা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। অসুস্থতার কারণে আসেননি ড. কামাল হোসেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া আলোচনা ফলপ্রসূ হবে না। তাকে মুক্তি দিয়ে নির্বাচনে কাজ করার সুযোগ দিতে হবে। নইলে তফসিল অর্থবহ হবে না। আমরা অবিলম্বে সকল নেতাকর্মীর মুক্তি চাই।

তিনি বলেন, জনসভায় নেতাকর্মীরা সকল বাধা অতিক্রম করে উপস্থিত হয়েছে। বর্তমানে সংকট আরো ভয়াবহ হয়েছে, কঠিন হয়েছে। এখন গণতন্ত্র থাকবে কিনা- সেটাই বড় প্রশ্ন। স্বৈরাচারী সরকার খালেদা জিয়াকে জেলে রেখেছে। তিনি অত্যন্ত অসুস্থ। জোরকরে তাকে ফের কারাগারে পাঠিয়েছে। ছোট্ট একটি ঘরে তার বিচারকার্য চলছে। তিনি এখনও হুইলচেয়ারে চলছেন। কারাগারের অন্ধকারে সরকার তাকে তিলেতিলে মেরে ফেলতে চায়।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই সরকারের জনভিত্তি নেই, দেউলিয়াত্বে পরিণত হয়েছে। পুলিশ দিয়ে তারা জনগণের অধিকার হরণ করেছে। দেশের মানুষ সত্যিকার অর্থে মুক্ত বাংলাদেশ চায়। জেলে যাওয়ার আগে খালেদা জিয়া বলেছিলেন, আমরা হিংসা চাই না। বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য চাই। তার নির্দেশেই এই ঐক্য।

তিনি বলেন, আমরা গণতন্ত্রের মুক্তির জন্য লড়াই করছি। নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দিতে হবে। সরকার প্রতিদিন মামলা দিচ্ছে। মামলাই তাদের বড় অস্ত্র। যা দিয়ে গায়েল করতে চায়। কিন্তু পারেনি, যার উদাহরণ মাদ্রাসা মাঠের সমাবেশ।