প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাচনী বিধি সম্পূর্ণরূপে প্রয়োগ ইসি’র সদিচ্ছার ওপর নির্ভর করে: ছহুল হোসাইন

মো: মারুফুল আলম: সাবেক নির্বাচন কমিশনার ছহুল হোসাইন বলেছেন, নির্বাচন সংক্রান্ত যত বিধি আছে, আইন আছে সব প্রয়োগ করার ক্ষমতা রাখে নির্বাচন কমিশন, এটা নির্ভর করে নির্বাচন কমিশনের সদিচ্ছার উপর।

তিনি বলেন, নির্বাচনে সুযোগ সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে সরকারি দল এবং বিরোধী দলের মধ্যে কোন বৈষম্য হচ্ছে কি না বা কেউ সুযোগ সুবিদা বেশি পেয়ে যাচ্ছে কি না এটা সবসময় দেখতে হয়। সরকার পক্ষে যারা থাকবেন তাদেরকে প্রচার প্রচারণায় অনেক আইন দিয়ে প্রতিহত করা হয়েছে। সার্কিট হাউস ব্যবহার করতে পারবে না। গাড়ি-ঘোড়া ব্যবহার করতে পারবে না। প্রটেকশন থাকবে না ইত্যাদি ইত্যাদি। এই আইনের অর্থই হলো একটা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করা।

ছহুল হোসাইন বলেন, ষোল সতের কোটি মানুষের সবরকম সুযোগ সুবিদা দেখাশোনা, দেশের আইন শৃঙ্খলা এবং বৈদেশিক সম্পর্ক বজায় রেখে চলা এসব কিছুর জন্য একটি সরকারতো থাকতেই হবে। সুতরাং সরকারকে তার কাজ করতে দিতে হবে। জরুরি রুটিন ওয়ার্ক এগুলো সরকার চালিয়ে নিয়ে যাবে।

প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেবেন, তিনি একটি দলেরও প্রধান। তিনি বিভিন্ন জায়গায় যখন নির্বাচনী প্রচারণা করবেন সেখানে তার একটা প্রটোকল থাকবে। তো এটি মানুষের উপর কোন প্রভাব ফেলবে কি না এই প্রশ্নের উত্তরে সহুল হোসেন বলেন, কিছু প্রভাব যে থাকবে তা অবশ্যই স্বীকার করতে হবে। উনি প্রধানমন্ত্রী আছেন, জিতলে পরে আবারও প্রধানমন্ত্রী হবেন। প্রভাব কিছু থাকবে এটা মনস্তাত্ত্বিক ব্যাপার। মানুষের মন থেকে এই প্রভাব সরাতে হলে গণতন্ত্রের চর্চা সম্পূর্ণভাবে করতে হবে।

সেনাবাহিনীর ম্যাজেস্ট্রিসি পাওয়ার না থাকার বিষয়ে তিনি বলেন, এক্ষেত্রে একটু তফাৎ থাকবেই। ম্যাজিস্ট্রেসি পাওয়ার দিলে যেভাবে কাজ করবেন, না দেওয়ায় সেভাবে করবেন না। পুলিশ বা র‌্যাবের হাতেও আর্মস থাকে তবে তারা একজন ম্যাজিস্ট্রেটের কন্ট্রোলে থাকে। সুতরাং তারা আর্মস ব্যবহার করবে কি করবে না তা আইনের লোকের উপর নির্ভর করে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত