প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অপহরণ হননি মনিকা রাধা

চট্টগ্রাম থেকে : সাত মাস আগে চট্টগ্রাম থেকে নিখোঁজ হওয়া লিটল জুয়েলস স্কুলের শিক্ষক মনিকা বড়ুয়া রাধার সন্ধান মিলেছে। গত মঙ্গলবার সাতক্ষীরা জেলার সীমান্ত এলাকা থেকে পুলিশ তাকে কৌশলে উদ্ধার করেছে বলে জানায়। পুলিশের দাবি, প্রেমিক কমলেশ কুমার মল্লিকের সঙ্গে ভারতে পালিয়ে বিয়ে করে সংসার করছিলেন মনিকা। এর আগে পুলিশ ভারতীয় নাগরিক কমলেশকেও ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। গতকাল দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার আমেনা বেগম।

আমেনা বেগম কমলেশের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, কমলেশ বাংলাদেশ ও ভারতে ব্যবসা করেন। গত ১২ এপ্রিল কমলেশ কুমার নিজে চট্টগ্রামে এসে মনিকাকে শ্যামলী গাড়িতে করে প্রথমে যশোর বেনাপোল সীমান্তে নিয়ে যান। সেখান থেকে পাসপোর্ট ও ভিসা ছাড়াই ভারতে প্রবেশ করান মনিকাকে। তারা বিয়ে করেছেন এবং মনিকা বড়–য়া রাধা বর্তমানে অনামিকা মল্লিক নাম ধারণ করেছেন। তিনি কলকাতার নিজস্ব ফ্ল্যাট সিদ্ধেশ্বরী অ্যাপার্টমেন্টে আছেন। মনিকার ভারতীয় নাগরিক হিসেবে পরিচয়পত্র ও অন্যান্য কাগজ সংগ্রহ করেছেন তিনি। তবে এখনো পাসপোর্ট হয়নি। সেটাও প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে।
পুলিশ কর্মকর্তা আমেনা বেগম বলেন, মূলত বৈবাহিক সূত্রে মনিকা এখন ভারতের নাগরিক। তিনি প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ। যেহেতু মনিকা নিখোঁজ হওয়ার পর তার স্বামী সাংবাদিক দেবাশীষ বড়–য়া বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছিলেন, তাই মনিকাকে উদ্ধার করা আমাদের দায়িত্ব হয়ে পড়ে। আমরা তাকে উদ্ধার করেছি। বাকি সিদ্ধান্ত বিজ্ঞ আদালত দেবেন।

মনিকা নিখোঁজের পর মানববন্ধনসহ তাকে উদ্ধারের দাবিতে আন্দোলন হয়। এ প্রসঙ্গে আমেনা বলেন, মনিকা ভারতে চলে যাওয়ার বিষয়টি তার দুই মেয়ে ও বোনরা জানতেন। তারা পুলিশকে সহায়তা না করে উল্টো মানববন্ধন করেছেন। মনিকা আমাদের বলেছেন, তিনি স্বেচ্ছায় ভারত গিয়েছিলেন এবং তিনি কমলেশ মল্লিকের সঙ্গে সুখে সংসার করছেন। আমরা তাকে কৌশলে সাতক্ষীরায় বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশ করিয়ে উদ্ধার করি।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন মনিকাকে উদ্ধার অভিযানের নেতৃত্ব দেওয়া চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (ডিবি) মো. কামরুজ্জামান এবং উপকমিশনার (ডিবি উত্তর) মিজানুর রহমান। সূত্র : দৈনিক আমাদের সময়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ