প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সরকার খালেদা জিয়াকে বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলতে চায় : জয়নুল

এস এম নূর মোহাম্মদ : আদালতকে না জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে কারাগারে স্থানান্তর করা বিচার বিভাগের প্রতি অবজ্ঞা বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দ। তারা বলেন, আদালতের নির্দেশে চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্ত কোন নোটিশ ছাড়াই তাকে বৃহস্পতিবার ফের কারাগারে নেয়া হয়েছে। আমরা খালেদা জিয়া পক্ষে আদালতের নজরে বিষয়টি এনেছি। আদালত বলেছেন তাদের জানানো হয়নি। সরকার খালেদা জিয়াকে বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলতে চাচ্ছে।

এদিকে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তি, বিচারবিভাগের স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের দাবিতে আগামী ১৭ নভেম্বর আইনজীবীদের মহাসমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি আয়োজিত সমিতির মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ একথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সমিতির সভাপতি ও বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ও বিএনপির যুগ্মসম্পাদক এম মাহবুব উদ্দিন খোকন।

জয়নুল আবেদীন বলেন, হাইকোর্টের নির্দেশে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার সঙ্গে আজ পর্যন্ত কোন আইনজীবী দেখা করতে দেয়া হয়নি। তার আত্মীয় স্বজনরাও নিয়মিত দেখা করতে পারেননি। বৃহস্পতিবার তাকে কারাগারে নেয়ার আগে বিষয়টি আদালতকে জানানো উচিত ছিল।

তিনি বলেন, অত্যন্ত দুঃখের বিষয় সকাল বেলা খবর ফেলাম যে মাত্র আধ ঘন্টার নোটিশে খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেয়া হয়েছে। আমরা মনে করি এতে বিচারবিভাগের প্রতি অবজ্ঞা করা হয়েছে।

মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনকে বিনা চিকিৎসায় কারাগারে নিয়ে গেছে। সরকার খালেদা জিয়ার উপর চাপ সৃষ্টি করে যেন তেন ভাবে নির্বাচন করতে চাচ্ছে। তিনি বলেন, আদালতকে না জানিয়ে খালেদা জিয়াকে কারাগারে স্থান্তর করা আদালত অবমাননার শামিল।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ