প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যৌন-নির্যাতনের জন্য ক্ষমাপ্রার্থনা দক্ষিণ কোরিয়ার

নূর মাজিদ : দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ১৯৮০’র দশকের জরুরি অবস্থার সময় যৌন নির্যাতনের জন্য দেশবাসীর কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করেছে। এই বিষয়ে টানা ৩৮ বছর নীরবতা পালনের পর গতকাল বুধবার প্রথম এই ক্ষমাপ্রার্থনার ঘোষণা দেয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। ৮০’র দশকে একটি গণতান্ত্রিক আন্দোলন দমনের সময় জারি করা জরুরি অবস্থা চলাকালে দেশটির সেনাবাহিনী অনেক নারী ও নাবালিকা কিশোরিকে ধর্ষণ করে। এই বিষয়ে গতকাল দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জিইয়ং কিয়ং দো দক্ষিণ কোরিয়ার জনগণের কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করে বলেন, জেনারেল চুং ডো হানের সামরিক ক্যু চলাকালীন সময়ে অবর্ণনীয় যৌন নির্যাতনের মাধ্যমে সামরিক বাহিনী জনগণের মনে গভীর ক্ষত সৃষ্টি করেছে। এই বিষয়ে আমরা অনুতপ্ত, লজ্জিত এবং ক্ষমাপ্রার্থী।

এই সময়ে জরুরি অবস্থা ও সামরিক সাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলাকালীন গুয়াঞ্জু শহরে পথচারীদের পিটিয়ে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়। এসময় অনেকে সামরিক বাহিনীর নির্বিচার বেয়নেট চার্জেও মারা পড়েন। এছাড়াও মৃতদের লাশের পেট কেটে বা তাতে গুলি করে বিকৃত করা হয়। দক্ষিণ কোরিয়ার রক্ষণশীলেরা এখনো ৮০’র দশকের ওই বিদ্রোহকে সমাজতান্ত্রিক উত্থানের চেষ্টা হিসেবেই দেখে থাকেন এবং সামরিক বাহিনীর অবস্থানকে সমর্থন করেন। সেসময় সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে ২০০ মানুষকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে। তবে দেশটির মানবাধিকার কর্মীদের মতে প্রকৃত সংখ্যা এর চাইতেও তিনগুণ বেশি। এনডিটিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ