প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রিয়াল মাদ্রিদ ২১৪ মিলিয়ন ইউরোয় কিনতে চেয়েছিল এমবাপেকে

স্পোর্টস ডেস্ক : ২০১৭ সালে পিএসজি কেনার আগেই কিলিয়ান এমবাপের দিকে হাত বাড়িয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ। এটা সবারই জানা। নতুন খবর হলো এই, তখনই ফরাসি বিস্ময়বালককে ২১৪ মিলিয়ন ইউরোয় কিনতে চেয়েছিল রিয়াল। এমবাপের তখনকার ক্লাব মোনাকোও তাকে রিয়ালের কাছে বেচতে রাজি হয়েছিল। কিন্তু বেঁকে বসেন স্বয়ং এমবাপে। রিয়ালের লোভনীয় প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়ে তিনি সিদ্ধান্ত নেন স্বদেশি ক্লাব পিএসজিতে যাওয়ার।

শেষ পর্যন্ত তার ইচ্ছাই পূরণ হয়েছে। মোনাকো থেকে পিএসজি তাকে দলে ভিড়িয়েছে ১৮০ মিলিয়ন ইউরোর চুক্তিতে। আইনী জটিলতা এড়াতে চুক্তিটা অবশ্য করা হয়েছে শর্তসাপেক্ষে। প্রথম মৌসুমের জন্য ধার চুক্তি দেখানো হয়। চুক্তিটা স্থায়ী হয়েছে এই মৌসুমে।

যাই হোক, এমবাপেকে রিয়ালের কাছে বেচলেও মোনাকো ঠিক ১৮০ মিলিয়ন ইউরোই পেত। রিয়ালকে বাকি ৩৪ মিলিয়ন ইউরো ঢালতে হতো আয়কর খাতে। সব মিলে ১৯ বছর বয়সী ফরাসি তরুণকে নিতে রিয়ালের খরচ হতো ২১৪ মিলিয়ন ইউরো। এই টাকা দিয়েই তাকে নিতে চেয়েছিল রিয়াল। কিন্তু এমবাপে বেঁকে বসায় রিয়ালের সেই আশা গুঁড়িয়ে যায়।

এতোদিন পর রিয়াল-মোনাকোর সেই গোপন আলোচনার তথ্যটা ফাস করল ফ্রান্সের সবচেয়ে প্রভাবশালী ক্রীড়া দৈনিক লেকিপ। পত্রিকাটির প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ২১৪ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে এমবাপেকে নিতে চেয়েছিল রিয়াল। রিয়ালে গেলে এমবাপের বার্ষিক বেতন হতো সেটা অবশ্য জানায়নি লেকিপ। তবে পিএসজিতে বর্তমানে এমবাপে কত টাকা বেতন পান, সেটা জানিয়েছে।

২০১৭ সালের আগস্টে চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেই বোনাসমানি হিসেবে ৫ মিলিয়ন ইউরো পকেটে পুড়েন এমবাপে। চুক্তি অনুযায়ী প্রথম দুই মৌসুমে তার বার্ষিক বেতন ধরা হয়েছে আয়কর বাদেই ১০ মিলিয়ন ইউরো। এদিকে গণমাধ্যমের গুঞ্জন, এমবাপেকে নাকি দাবি করেছেন ব্যালন ডি’অর জিততে পারলে তার বার্ষিক বেতন ১০ মিলিয়ন থেকে বাড়িয়ে ৩০ মিলিয়ন ইউরো করতে হবে।

কিন্তু গণমাধ্যমের এই গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছে পিএসজি। প্যারিসের ক্লাবটি স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছে, এরকম কোনো আবদার এমবাপে করেননি। তবে পিএসজি এটা স্বীকার করেছে, ব্যালন ডি’অর জিততে পারলে এমবাপেকে বাড়তি ৫ লাখ ইউরো বোনাস হিসেবে দেওয়া হবে। – গোল ডটকম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ