Skip to main content

সংলাপ টুকিটাকি

সাব্বির আহমেদ : ঐক্যফ্রন্টের সোহরাওয়ার্দীর সমাবেশের প্রশংসায় প্রধানমন্ত্রী  ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দ্বিতীয় দফা সংলাপ বুধবার বেলা ১১টার পর শুরু হয়। প্রথমে ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের গণভবনে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী। এরপর মঙ্গলবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঐক্যফ্রন্টের যে সমাবেশ হয় তার প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভালো সমাবেশ করায় তাদের ধন্যবাদও দেন তিনি। পরে আগতদের ওয়েলকাম জুস, বিভিন্ন ফলের ফ্রেশ জুস, বাদাম ও চিপস দেওয়া হয়। এরপর আগত মেহমানদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে হালকা নাস্তার ব্যবস্থা করা হয়। এর আগে গত ১ নভেম্বর প্রথম দফার সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। সেদিন ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের জন্য ১৮ পদের খাবারের আয়োজন করা হয়। দুপুরের খাবার খাননি নেতারা ২য় দফা সংলাপে দুপুরের খাবার না খেয়ে গণভবন থেকে বেরিয়ে যান জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। বুধবার দুপুর ২টার দিকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিতীয় দফা বৈঠক শেষে তাদের চলে যেতে দেখা গেছে। গণভবন সূত্রে জানা যায়, খাবারের মেন্যুতে ছিল—স্ন্যাক্স, চিংড়ি ভাজা, স্যান্ডউইচ, নুডুলস, চিকেন রোল, ভেজিটেবল রোল, ফিশ কাটলেট, ফল, বিভিন্ন ফলের জুস, চা ও কফি। গত ১ নভেম্বরও গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের সংলাপ হয়। সেদিন খাবারের মেন্যুতে রাখা হয়েছিল পিয়ার সরদারের মোরগ পোলাও, চিতল মাছের কোপ্তা, রুই মাছের দো-পেঁয়াজা, চিকেন ইরানি কাবাব, বাটার নান, মাটন রেজালা, বিফ শিক কাবাব, মাল্টা, আনারস, জলপাই ও তরমুজের ফ্রেশ জুস, চিংড়ি ছাড়া টক-মিষ্টি স্বাদের কর্ন স্যুপ, চিংড়ি ছাড়া মিক্সড নুডলস, মিক্সড সবজি, সাদা ভাত, টক ও মিষ্টি উভয় ধরনের দই, মিক্সড সালাদ, কোক ক্যান এবং চা ও কফি। সংলাপে নাস্তার তালিকায় যা ছিল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিতীয় দফা বৈঠক করতে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার পরপরই গণভবনে প্রবেশ করেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ১১ জন নেতা। গেল সংলাপ রাতে হলেও এবার হয়েছে সকালে। তাই নাস্তার তালিকায় ছিল- কিউই, ড্রাগন ফুড, আম, নুডুলস, স্যান্ডউইচ, রোল, চপ ও রায়তা।

অন্যান্য সংবাদ