Skip to main content

রোহিঙ্গাদের আগমনে বড় রকমের পরিবেশগত ঝুঁকিতে পড়েছে বাংলাদেশ: প্রতিবেদন

আসিফুজ্জামান পৃথিল : ২০১৭ সালে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর আক্রমণের শিকার হয়ে ৭ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা শরণার্থী হিসেবে বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নেয়। নিজেদের জন্য আশ্রয় বানাতে রোহিঙ্গারা হাজার হাজার একর পাহাড় কেটে ফেলেছে। জ্বালানীর প্রয়োজন মেটাতে নিয়মিত কাটা হচ্ছে গাছপালা। ফলে পরিবেশ বিপর্যয়ের ঝুঁকিতে পড়েছে বাংলাদেশ। এসব উঠে এসেছে ইউএনডিপির এক প্রতিবেদনে। রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে, এ বছরের অক্টোবরে এসে কক্সবাজার জেলার দুই উপজেলায় রোহিঙ্গা শরণার্থীর সংখ্যা ৯ লাখ অতিক্রম করেছে। স্বল্প এলাকায় এ বিপুল জনসংখ্যাও যেকোনসময় ডেকে আনতে পারে পরিবেশগত বিপর্যয়। নর্থ টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ইদিয়ান সালিয়েন এ বিষয়ে বলেন, ‘শরণার্থীরা প্রায়ই পরিস্কার পানি, জ¦ালানি কাঠ আর অন্যান্য সম্পদের জন্য স্থানীয়দের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে। আমরা বাংলাদেশে নাটকীয়ভাবে রোহিঙ্গা জনসংখ্যা বৃদ্ধি পেতে দেখেছি। এত বিপুল সংখ্যক নতুন জনগোষ্ঠী, যারা জীবন বাচানোর তাগিদে লড়ছে, পুরো পরিবেশকেই ধ্বংস করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ঠ।’ রোহিঙ্গা শরণার্থীরা বর্তমানে পুরোপুরি মানবিক সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল। তবে শরণার্থীদের প্রস্তুতকৃত খাদ্য না দেওয়ায় জ¦ালানী চাহিদা পূরণের জন্য তারা বন উজার করেই চলেছেন। তবে জাতিসংঘ এবং বাংলাদেশ সরকার সম্প্রতি তাদের এলপিজি গ্যাস সরবরহ শুরু করেছে। নিউ আরব

অন্যান্য সংবাদ