প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অভিষেক ভেন্যুর ইতিহাস ও রেকর্ড বদল হলো না এবারও

স্পোর্টস ডেস্ক : বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম দিয়ে শুরু, এরপর আরও সাতটি টেস্ট ভেন্যু দেখেছে সাদা পোশাকের বাংলাদেশ। সর্বশেষ সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম বাংলাদেশের অষ্টম টেস্ট ভেন্যু হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। যেখানে সফরকারী জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৫১ রানের বিশাল ব্যবধানে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথমটি হারে স্বাগতিক বাংলাদেশ। এর ফলে আটটি টেস্ট ভেন্যুর কোনোটিতেই জেতা হয়নি স্বাগতিকদের।

খুব বেশিদিন হয়নি বাংলাদেশে ক্রিকেটের উত্থান। ওয়ানডেতে রীতিমতো ভয়ঙ্কর দল হলেও বাংলাদেশ এখনও টেস্ট ও টি-টোয়েন্টির ফরম্যাটে নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি। জিম্বাবুয়ের মতো দলের বিপক্ষেও হারতে হলো সাদা পোশাকের ম্যাচ। যাদের কদিন আগেই ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করেছে বাংলাদেশ। কিন্তু, টেস্টে অতীতের মতো এখনও ম্যাচ হাতছাড়া করছে মুশফিক-মাহমুদুল্লাহ-সাকিব-তামিমরা। এসব নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। পাশাপাশি হোম ভেন্যু বাড়ানোর জন্যও কাজ করছে বিসিবি। স্টেডিয়াম, ভেন্যুগুলো তৈরি হওয়ার পাশাপাশি কাঠামোগত উন্নয়ন নিশ্চিত করতেও কাজ করে যাচ্ছে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এর আগে ২০১২ সালে অভিষেক হয়েছিল খুলনার, এরপর নতুন কোনো টেস্ট ভেন্যু দেখতে বাংলাদেশকে ৬ বছর অপেক্ষায় থাকতে হয়েছিল। গত শনিবার (৩ নভেম্বর) অষ্টম ভেন্যু হিসেবে শুরু করে সিলেট। তবে, ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দিয়ে সিলেটের যাত্রা শুরু হয়। ছেলেদের বাছাইপর্ব ও মেয়েদের মূল পর্ব মিলে সেই বছর ৩০টি ম্যাচ হয়েছিল এই স্টেডিয়ামে। এরপর অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপসহ আরও নানা আয়োজন হয়েছে সিলেটে, গত বছর বিপিএল শুরু হয়েছিল সবুজে মোড়া এই ভেন্যুতে। এই বছর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই মাঠে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ভেন্যু হিসেবে যাত্রা শুরু হয়েছিল।

এখন পর্যন্ত যে আটটি ভেন্যুতে টেস্ট হয়েছে বাংলাদেশে, তার প্রতিটিতেই প্রথম ম্যাচে হেরেছে বাংলাদেশ। দেশের অষ্টম ও বিশ্বের ১১৬তম টেস্ট ভেন্যু হিসেবে অভিষেক হয় সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের। বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে প্রথম টেস্ট দিয়ে টেস্ট আঙ্গিনায় পথ চলা শুরু হয় সিলেটের। এর আগে দেশের মধ্যে ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম, নারায়ণগঞ্জের খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়াম, চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়াম ও বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। যার প্রতিটি অভিষেকেই বাংলাদেশকে হারতে হয়েছে। সিলেটের অভিষেকেও হারতে হলো বাংলাদেশকে।

এর মধ্যে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়াম এবং বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে এখন আর কোনো টেস্ট ম্যাচ হয় না। ২০০০ সালে বাংলাদেশ তাদের অভিষেক ম্যাচ খেলেছিল ভারতের বিপক্ষে, বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। সেই ম্যাচে ভারত জিতেছিল ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। ২০০১ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের ম্যাচ দিয়ে টেস্ট অভিষেক হয় চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের। সেই ম্যাচে সফরকারী জিম্বাবুয়ে জিতেছিল ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে। ২০০৬ সালের মার্চে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচ দিয়ে টেস্ট অভিষেক হয় বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামের। সেই ম্যাচে বাংলাদেশকে হারতে হয়েছিল ১০ উইকেটের ব্যবধানে। বগুড়ার এই স্টেডিয়ামে মাত্র একটিই টেস্ট হয়েছে।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়াম টেস্টে অভিষিক্ত হয় ২০০৬ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি। সেই ম্যাচে অংশ নিয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ এবং সফরকারী শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশ হেরেছিল ৮ উইকেটের ব্যবধানে। ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়ামের অভিষেকে ২০০৬ সালের ৯ এপ্রিল সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নেমেছিল বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে অজিদের বিপক্ষে বাংলাদেশ হেরেছিল ৩ উইকেটে। এরপর এই স্টেডিয়ামে আর একটিই মাত্র টেস্ট হয়েছে ভারতের বিপক্ষে। ২০১৫ সালের জুনে সেই ম্যাচটি অবশ্য ড্র করেছিল স্বাগতিকরা। খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামের টেস্ট অভিষেক হয়েছিল ২০১২ সালের ২১ নভেম্বর। সেই ম্যাচে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ এবং সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ক্যারিবীয়ানরা স্বাগতিকদের সেই ম্যাচে হারিয়েছিল ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। এই স্টেডিয়ামে এরপর বাংলাদেশ খেলেছিল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, ২০১৪ সালে। সেই ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ১৬২ রানে হারিয়েছিল টাইগাররা। আর ২০১৫ সালে সবশেষ এই স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচে নেমেছিল পাকিস্তান। ম্যাচটি ড্র হয়েছিল।

দেশের হোম অব ক্রিকেট খ্যাত মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট খেলেছিল ২০০৭ সালের মে মাসে। প্রতিপক্ষ ছিল ভারত। সেই ম্যাচেও হেরেছিল স্বাগতিকরা। বাংলাদেশ হেরেছিল ইনিংস ও ২৩৯ রানের বিশাল ব্যবধানে। এই ভেন্যুতেই স্বাগতিকরা হারিয়েছিল জিম্বাবুয়ে, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়াকে। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে মিরপুরে খেলা সবশেষ টেস্ট ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ হেরেছিল ২১৫ রানের বিশাল ব্যবধানে। সারাবাংলা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ