প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বরিশাল-২ আসন
সংসদ সদস্য তালুকদার ইউনুসের গণসংযোগ, মাঠে নেই বিএনপি

খোকন আহম্মেদ হীরা, বরিশাল: বানারীপাড়া ও উজিরপুর উপজেলা নিয়ে গঠিত বরিশাল-২ সংসদীয় আসন। এ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক সুখী-সমৃদ্ধিশালী দেশ গঠণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অপ্রতিরোধ অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে আবারও নৌকার প্রার্থী হতে চান তিনি।
এলক্ষ্যে দীর্ঘদিন থেকে নির্বাচনী এলাকায় তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে নিরলস গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলেও রয়েছে তার সরব উপস্থিতি। বর্তমানে দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে নির্বাচনী গণসংযোগের পাশাপাশি দুই উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধণ ও সরকারের নানামুখী উন্নয়ন প্রচারের জন্য সভা-সমাবেশ অব্যাহত রেখেছেন সাংসদ তালুকদার মোঃ ইউনুস।

তৃণমূল পর্যায়ের দলীয় নেতাকর্মীরা বলছেন, এ দুই উপজেলায় দিন বদলের উন্নয়নের ধারা ধরে রাখতে তালুকদার মোঃ ইউনুসের বিকল্প নেই। তবে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা এখনও মাঠে না নামলেও ওয়ার্কার্স পার্টি এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত প্রার্থীরা নির্বাচনী গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ উন্নয়নের ওপর ভর করে এবারও এ আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর শতভাগ বিজয় নিশ্চিত করতে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছেন।

জানা গেছে, ছাত্ররাজনীতি থেকে উঠে আসা তালুকদার মোঃ ইউনুস জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছেন। কারাবরন থেকে শুরু করে একাধিকবার নির্যাতনের শিকার হওয়া সত্বেও তিনি কখনও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধীদের সাথে আপোস করেননি। বরিশাল বারের সভাপতি থাকাকালীন ২০০১ সালের নির্বাচন পরবর্তী সময়ে দলের দুর্দীনে এ্যাডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস নেতাকর্মী ও সমর্থকদের পাশে থেকে বিনামূল্যে আইনী সেবা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশিত পথে দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নে বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর নেতৃত্বে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন।

তালুকদার মোঃ ইউনুস বলেন, অসাম্প্রদায়িক ও সন্ত্রাসমুক্ত দেশ চাইলে, পদ্মা সেতুর সফল সমাপ্তি, মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতাসহ বিভিন্ন ভাতা চালু রাখতে, দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা, সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়ন, সন্তানদের লেখাপড়ায় বিনামূল্যে বই ও উপবৃত্তি চালু রাখাসহ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে চাইলে অবশ্যই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে শেখ হাসিনার প্রার্থীদের নির্বাচিত করতে হবে। পৌনে পাঁচ বছরে বানারীপাড়া ও উজিরপুর উপজেলায় ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নে প্রায় সাড়ে ৭০০ কোটি টাকার উন্নয়ন হয়েছে দাবি করে সাংসদ তালুকদার মোঃ ইউনুস আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অপ্রতিরোধ অগ্রযাত্রায় দক্ষিণাঞ্চলের একমাত্র উন্নয়নের রূপকার আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর ঐক্লান্তিক প্রচেষ্ঠায় প্রতিটি উন্নয়ন কাজে দুই উপজেলার জনপ্রতিনিধি ও দলীয় নেতৃবৃন্দ বিশেষ অবদান রেখে সর্বাত্মক সহায়তা করেছেন।

সূত্রমতে, এ আসনে বর্তমান সাংসদ এ্যাডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস ছাড়াও দলের মনোনয়ন চাচ্ছেন সাবেক এমপি মনিরুল ইসলাম মনি, শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের দৌহিত্র ফাইয়াজুল হক রাজু, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি শাহে আলম, প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ হাবিবুর রহমান, সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী সৈয়দা রুবিনা আক্তার মীরা ও ক্যাপ্টেন এম মোয়াজ্জেম হোসেন। বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা তালিকায় রয়েছেন দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য শিল্পপতি এস সরফুদ্দিন আহমেদ সান্টু, জাতীয় প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক ইলিয়াস খান ও সাবেক হুইপ শহীদুল হক জামাল। জাতীয় পার্টির (এরশাদ) প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য চিত্রনায়ক মাসুদ পারভেজ সোহেল রানা। ওয়ার্কার্স পার্টির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে গণসংযোগ করছেন জহিরুল আলম টুটুল। এখানে ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী হচ্ছেন মাওলানা নেছার উদ্দিন। ন্যাশনাল পিপল্স পার্টি (এনপিপি)’র প্রার্থী হতে পারেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সাহেব আলী হাওলাদার রনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ