প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণা: ইসি

সাইদ রিপন: একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ৮ নভেম্বর ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচনকমিশন। রোববার ইসির ৩৯ তম কমিশনসভা শেষে সন্ধ্যা ৭টায় কমিশনের এ সিদ্ধান্ত জানান নির্বাচন কমিশনার শাহাদাত হোসেন চৌধুরী।

সংবাদ ব্রিফিংয়ে সাবেক এসেনা কর্মকর্তা বলেন, “আমরা ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ওই দিন অপরাহ্নে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণের মাধ্যমে সংসদ নির্বাচনের বিস্তারিত তফসিল ঘোষণা করা হবে।”

সাধারণত সন্ধ্যা ৭ টার পরে বিটিভি-বেতারের মাধ্যমে এতফসিল ঘোষণা করা হয়। সর্বশেষ দশম সংসদ নির্বাচনের তফসিলও ঘোষণা করা হয় সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে।

চলমান রাজনৈতিক সংলাপের মধ্যে তফসিল দিতে ‘অপেক্ষা’ করতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অনুরোধের মধ্যে এ তথ্য জানান ইসি। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দলগুলোর সংলাপ শেষ হচ্ছে ৭ নভেম্বর। জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার শাহাদাত হোসেন চৌধুরী বলেন, “৪ নভেম্বর আমাদের তফসিল দেওয়ার কথা ছিল। এখন সবকিছু বিবেচনা করে ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণা করা হবে।”

৩ ও ৪ নভেম্বরের কমিশনসভায় প্রয়োজনীয় বিধিমালা চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। আইন মন্ত্রণালয়ের ভেটিং শেষে তা জারি করা হবে।

ইভিএম ব্যবহারের বিষয়ে এ নির্বাচন কমিশনার জানান, স্বল্প পরিসরে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। এখনও কত সংখ্যক আসনে ব্যবহার করা হবে সেবিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি।

বিএনপির গঠনতন্ত্র নিয়ে আদালতের নির্দেশনা প্রতিপালনের কথা জানান তিনি। তবে কত দিনের মধ্যে তা নিষ্পত্তি করা হবে নিশ্চিত জানাননি এ নির্বাচন কমিশনার।

“তফসিল ঘোষণার আগে নিষ্পত্তি করবো কিনা সে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। যেহেতু আদালতের নির্দেশনা প্রতিপালনের বিষয় রয়েছে; বাধ্যবাধকতা রয়েছে; খুব শিগগির তা আমরা করবো।

একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিলে ৪৫ দিন সময়কে ‘স্টান্টার্ড’ মেনে ভোটের সময়সূচি ঘোষণা করা হচ্ছে বলে জানান নির্বাচন কমিশনার শাহাদাত হোসেন চৌধুরী।

তবে মনোনয়নপত্র দাখিল, বাছাই, প্রত্যাহার ও ভোটের তারিখ ৮ নভেম্বরই তফসিলের সময় চূড়ান্ত হবে বলে জানান তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শাহাদাত হোমেন চৌধুরী বলেন, “আপনার জানেন, একটা স্টান্ডার্ড সময় লাগে। তা ৪৫ দিনের কাছাকাছি।”

খালেদা জিয়া ভোট করতে পারবেন কিনা সে প্রশ্নের জবাবে তিনি সাংবাদ সম্মেলন থেকে উঠে যাওয়ার সময় বলেন সেটা পরে জানতে পারবেন।

সংবাদ সম্মেলনে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ওজন সংযোগ পরিচালক যুগ্মসচিব এস এম আসাদুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বিকাল ৩-৪ টা কমিশনের ৩৮ তম কমিশন চলে। সন্ধ্যা সাড়ে ছয় টায় বসে ৩৯তম কমিশন সভা। এ সভায় তফসিল কবে হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। এ কমিশন সভায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানমও শাহাদাত হোসেন চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

সর্বাধিক পঠিত