প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজধানীতে বাইকার গ্যাংস্টার গ্রুপের ৮সদস্য আটক

সুজন কৈরী: রাজধানীর শাহজাহানপুর ও খিলগাঁও এলাকার উদীয়মান ‘বাইকার গ্যাংস্টার’ গ্রুপের ৮ সক্রিয় সদস্যকে শনিবার রাতে আটক করেছে র‌্যাব-৩। আটককৃতরা হলো- মো. মেহেদী হাসান (২২), মো. শাহরিয়ার (২২), কাজী ইউসুফ বিন শওকাত ওরফে অনিক (১৯), মো. আমিনুল ইসলাম ওরফে আমিন (২০), মো. আবু হুরায়রা আদিব (১৮), মো. সাব্বির হোসেন (১৮), মো. শিশির আহম্মেদ ওরফে সজল (২২) ও মো. মাজহারুল ইসলাম ওরফে অনিক ইসলাম (২১)। তাদের কাছ থেকে ৫টি মোটরসাইকেল, ৩টি ব্যবহৃত গুলির খোসা, ১টি প্রজেক্টাইল, একটি ডামি পিস্তল উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব জানায়, রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে এলাকা ভিত্তিক গ্যাং কালচার গড়ে উঠেছে। গ্যাং কালচারের নামে দিন দিন ভয়ংকর হয়ে উঠেছে রাজধানীর খিলগাঁও তালতলা এবং শাহজাহানপুর এলাকার কিশোরদের একটা অংশ। এসব কিশোর শুরুতে মূলত পার্টি করা, হর্ণ বাজিয়ে প্রচন্ড গতিতে মোটরসাইকেল চালানো ও রাস্তায় মেয়েদের উত্যক্ত করতো। পরে দিন দিন এসব কিশোর ভয়ংকর হয়ে উঠে। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার, হিরোইজম ও থ্রিল থেকে ছিনতাই, মাদক বাণিজ্য, ডাকাতি- চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে।

র‌্যাব জানায়, রাব্বি ওরফে পাঠা রাব্বি ও অদিতের নেতৃত্বে গড়ে ওঠা বাইক গ্যাংস্টার গ্রুপ ‘রোড রাইডার্স’, ‘ক্রাস বিডি’ ইত্যাদি নাম পরিচয়ে এলাকায় প্রায় এক বছর ধরে ত্রাস সৃষ্টি করে আসছিল। ‘ক্রাশবিডি’ গ্রুপ বাইক স্ট্যান্টের নামে দলে সদস্য জোগাড় করে এবং পরে ৩০ থেকে ৪০জনের বিশাল বাহীনি নিয়ে শোডাউনের নামে ছিনতাই, দস্যুতা, চাঁদাবাজিসহ নানা অপরাধ করে। গ্রুপটির সকল সদস্যই তরুন এবং বয়স ১৭ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে। গ্রুপটি পুরান ঢাকার ‘বার্ন রাইডারস’ গ্রুপের সঙ্গে মোটরসাইকেল শোডাউন করে ওই এলাকায় সন্ত্রাসী কার্যক্রমের মাধ্যমে ত্রাস সৃষ্টি করত। তারা খিলগাঁও, সবুজবাগ, শাহজাহানপুর ও পুরান ঢাকার খান রাসেল গ্রুপ, শাহজাহানপুরের ইমন গ্রুপ, গোড়ানের হাওয়াই গলির মুজিবুর রহমান রানা, গোড়ান ঝিলপাড়ের ছিনতাইকারী মেহেদী গ্রুপ এবং পুরান ঢাকার বিভিন্ন গ্রুপের সাথে জড়িত।

র‌্যাব-৩ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীনা রানী দাস জানান, শনিবার রাতে তালতলা ‘চায়ের বাড়ী’ নামক ফাস্টফুডের সামনে জড়ো হয়ে শোডাউন করে। ২০ থেকে ২৫টি মোটর সাইকেল নিয়ে তারা খিলগাঁও তালতলা মেম্বার গলিতে মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশের এজেন্টের দোকান থেকে ৫০হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। ওই সময় দোকান মালিক মো. মনির হোসেন টাকা দিতে অস্বীকিৃত জানালে প্রথমে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে এবং পরে রাব্বি দোকানের দিকে তাক করে তাদের হাতে থাকা পিস্তল থেকে কয়েকটি গুলি করে। এতে দোকান মালিক প্রাণে বেঁচে গেলেও ২-৩ টি গুলি তার

সামনে থাকা টেবিল ভেদ করে চলে যায় এবং টেবিলের ড্রয়ারে থাকা মোবাইল ও হিসাব খাতায় আঘাত করে। ওই সময় এলাকায় টহলরত র‌্যাবের দল খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে এবং এলাকাবাসীর সহায়তায় সন্ত্রাসী গ্রুপের ৫ জনকে আটক করে। পরে তাদের দেয়া তথ্যে শাহজাহানপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই গ্রুপের আরো ৩ সদস্যকে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ