প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উন্ননের প্রচার করায় হামলার শিকার

কায়েস চৌধুরী: রাজবাড়ী -২ আসনের (পাংশা, কালুখালী, বালিয়াকান্দি) পাংশা উপজেলায় আওয়ামী লীগের পক্ষে গণসংযোগ, লিফলেট বিতরণ ও বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ভিডিও চিত্রের মাধ্যমে প্রচারের সময় হামলার শিকার হয়েছেন স্থানীয় নেতা ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় আইন বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য মেহেদী হাসান।

রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ঘটনার আদ্যোপান্ত তুলে ধরেন মেহেদী হাসান।

মেহেদী হাসান অভিযোগ করে বলেন, ‘সরকারের উন্নয়ন প্রচার করার সময় পংশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সামনেই জিল্লুল হাকিম তার লোক দিয়ে আমার ওপর হামলা চালায়। বিগত ২ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের রাজবাড়ীর পাংশায দলীয় প্রোগ্রামে আসা উপলক্ষে পাংশা থানা উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক ফরিদ হাসান ওদুদ এর নিজ বাসভবনে বেধড়ক লাঠিপেটা এবং অতর্কিত গুলিবর্ষণ করা হয়। পাশাপাশি অনেক গাড়ি ভাংচুর করা হয়। রাজবাড়ী-২ আসনের সাধারণ জনগণের মনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।’

তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, ‘পাংশা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল কালাম আজাদকে এমপি জিল্লুল হাকিমের লোকেরা লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক জখম করে পাংশা সার্কেল অফিসের সামনে মৃতপ্রায় অবস্থায় ফেলে রেখে চলে যায়। বর্তমানে ওই এলাকার সাংবাদিকরা প্রচন্ডভাবে জিম্মি অবস্থায় আতঙ্কিত অবস্থায় কার্যক্রম পরিচালনা করছে।’

রাজবাড়ী-২ আসনে জাতীয় শোক দিবস, জাতীয় চার নেতার মৃত্যুবার্ষিকীসহ কোন ধরনের দলীয় প্রোগ্রাম করতে দেযা হয় না বলে তিনি সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ