প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

টাইব্রেকারে হেরে গ্রুপ সেরা হতে পারলো না চট্টগ্রাম আবাহনী

নিজস্ব প্রতিবেদক : ফেডারেশন কাপের শেষ আট আগেই নিশ্চিত হয়েছিল দু’দলের। রোববার ‘এ’ গ্রুপের সেরা হওয়ার লড়াইয়ে নেমেছিল চট্টগ্রাম আবাহনী ও আরামবাগ ক্রীড়া সঙ্ঘ। টাইব্রেকারে চট্টগ্রাম আবাহনীকে হারিয়ে সে লড়াইয়ে জিতেছে আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে রোববার নির্ধারিত সময়ের খেলা ২-২ গোলে ড্র হওয়ায় গ্রুপ সেরা নির্ধারণ হয় টাইব্রেকারে যাতে ৪-২ গোলে জিতে মারুফুল হকের দল। রহমতগঞ্জকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ৩-১ গোলে হারিয়েছিল প্রতিযোগিতাটির গতবারের রানার্সআপ চট্টগ্রাম আবাহনী। একই ব্যবধানে রহমতগঞ্জের বিপক্ষে জিতেছিল আরামবাগ।

অষ্টম মিনিটে প্রথম সুযোগটি কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যায় চট্টগ্রামের দলটি। মাঝ মাঠ থেকে সতীর্থের লম্বা করে বাড়ানো বল চিপ করে আগুয়ান গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে জালে জড়িয়ে দেন নাইজেরিয়ার ফরোয়ার্ড মাগালান আওয়ালা।

দুই মিনিট পরই সমতায় ফিরতে পারত আরামবাগ। কিন্তু জাহিদ হোসেনের কর্নারে উজবেকিস্তানের ফরোয়ার্ড বোবোজোনোভ ইকবালজন নরমাতোভিচের হেডে বল পোস্টে লেগে ফিরে। ৩৯তম মিনিটে কেস্ট কুমার বোসের বাড়ানো বল ধরে দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গাম্বিয়ার ফরোয়ার্ড মোমোদু বাহ জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করলে ব্যবধান দ্বিগুন হয়।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে সফল স্পট কিকে আরামবাগকে ম্যাচে ফেরান নরমাতোভিচ। ডি-বক্সের মধ্যে জাহিদ ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। ৮৫তম মিনিটে শাহরিয়ার বাপ্পীর দারুণ গোলে সমতায় ফেরে আরামবাগ। প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে বাঁ পায়ের সাইড ভলিতে ঠিকানা খুঁজে নেন এই মিডফিল্ডার।

এরপর ম্যাচের ভাগ্য গড়ায় টাইব্রেকারে। চট্টগ্রাম আবাহনীর মুফতা লাওয়াল প্রথম শট পোস্টের ওপর দিয়ে উড়িয়ে মারেন। নাজমুল ইসলাম রাসেলের দ্বিতীয় শট ফিরিয়ে দলের জয়ে বড় ভূমিকা রাখেন আরামবাগের গোলরক্ষক মাজহারুল ইসলাম হিমেল।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত