প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্যানারে শোকরানা পরিণত হয়েছে শোকারানায়

কান্তা আইচ রায় : হেফজতে ইসলাম আজ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিস সনদকে মাস্টার্সের সমমনা দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা জানিয়ে শোকরানা মাহফিলের আয়োজন করেছে। বাংলা একাডেমি প্রণীত অভিধানে খুঁজে পাওয়া যায়নি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের একাধিক ব্যানারে ব্যবহৃত শোকারানা শব্দটি। শোকরানা শব্দটিকে ব্যবহার করা হয়েছে গোঁড়ামি করে এমনটাই বলছেন শিক্ষাবিদরা। তবে হেফাজতে ইসলাম বিষয়টিকে অসাবধানতাবশত ভুল বলে উল্লেখ করেছেন।

রোববারের সংবর্ধনাকে কেন্দ্র করে হেফাজত সমর্থক ও কওমি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে রাজধানীতে প্রবেশ করতে থাকেন । রাজধানীর বাইরে থেকে বাসযোগে প্রবেশ করার সময় তাদের সঙ্গে ছিল ব্যানার ও পোস্টার। এসব ব্যানার ও পোস্টারে সংবর্ধনার বিষয়টিকে ভুল বানানে লিখতে দেখা গেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার রাজু ভাস্কর্যের পাশে টানানো হয়েছে সংবর্ধনার একটি ব্যানার। তবে ওই ব্যানারে শোকরানা শব্দটিকে লেখা হয়েছে শোকারানা। বাংলা একাডেমির অভিধানে শোকারানা বলে কোনো শব্দেরই উল্লেখ নেই। অন্যদিকে শোকরানা শব্দের অর্থ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা। একই অর্থে শুকরানা শব্দটি ব্যবহৃত হলেও শোকারানা শব্দের ব্যবহার নেই বাংলায়।

হেফজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ জাফরুল্লাহ খানে এ বিষয়ে বলেন, ব্যানারগুলো দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসেছে। অসাবধানতাবশত এগুলোতে কিছু ভুল থাকতে পারে।

তবে শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. মমতাজউদ্দিন পাটোয়ারি শিক্ষার সনদ স্বীকৃতির সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমন বানানকে দৃষ্টিকটু বলে মন্তব্য করেছেন । তিনি বলেন, মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা অভিধান না মেনেই নানা বানানে আরবি শব্দ লেখেন। নানা পিকুলিয়ার বানানে তারা এগুলো লিখে থাকেন। এখানে তাদের কিছুটা গোঁড়ামি রয়েছে। অভিধান অনুযায়ী আরবি বানানটি হ্রস্ব-ই-কার হলেও তারা এখনও দীর্ঘ-ই-কার লেখেন। তবে সরকার যেহেতু উদ্যোগ নিয়েছে তাই হয়তো ধীরে ধীরে তাদের এ বিষয়গুলো ঠিক করা সম্ভব হবে। সূত্র : সময় টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ