প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চালকের হেলমেট মজবুত, যাত্রীকে দেয়া হচ্ছে নিম্ন  মানের হেলমেট

ওয়ালি উল্লাহ সিরাজ : নামেই হেলমেট, কাজে নয়। বিভিন্ন রাইড শিয়ারিং প্রতিষ্ঠান থেকে ফ্রিতে দেয়া নিম্ন মানের হেলমেটের কারণে নিরাপত্ত ঝুকিতে রাজধানির হাজার হাজার মটর সাইকেল আরোহী। অন্য দিকে একই হেলমেট অনেকজন ব্যবহারের ফলে আরোহীদের মাঝে বিভিন্ন প্রকার রোগ-ব্যাধি দেখা দিতে পারে। এই সকল সমস্যার কারণে বিশেষজ্ঞদের মতামত হচ্ছে যাত্রীরা যেন নিজেস্ব হেলমেট ব্যবহার করে।

ঢাকার রাস্তায় এখন মোটরসাইকেলের রাজত্ব। যাত্রী কল্যাণ সংস্থার তথ্য মতে রাজধানীতে মোটরসাইকেল চলছে প্রায় পাঁচ লাখ। বছর খানেক আগেও যার সংখা ছিলো লাখ খানিক। প্রতিদিনই প্রায় নিবন্ধিত হচ্ছে ২৫০টি মোটরসাইকেল। মূলত গত বছর মোবাইল অ্যাপস ভিত্তিক রাইড শিয়ারের কারণে হু হু করে বাড়ছে দুই চাকার এই যানবহনটি। সঙ্গে বাড়ছে দুর্ঘটনার ঝুকিও।
ট্রাফিক পুলিশের কড়াকড়ির কারণে হেলমেট ব্যবহার করছে যাত্রীরা। কিন্তু পাঠাও, উবার ও ওভাই এর যাত্রীদের যে হেলমেট দেয়া হচ্ছে তা দুর্ঘটনা মোকাবেলায় কতটা কার্যকারী। সরেজমিন বলছে চালকের হেলমেটটি মজবুত হলেও যাত্রীকে দিচ্ছে নি¤œ মানের হেলমেট।

এক যাত্রী বলেন, হেলমেট পড়ার অর্থ হচ্ছে নিরাপত্তা বজায় রাখা। কিন্তু আমরা যে, হেলমেট পড়ছি সেটাতে কোনো সেপটি নেই। তাহলে আমি হেলমেটটা কেন পড়বো?

একজন মোটরসাইকেল চালক বলেন, আমার মত একটা ভালো হেলমেট যদি যাত্রীকে পড়তে দিই তাহলে যাত্রীরা পড়তে চান না।
ডিএনপি ট্রাফিকের যুগ্ম কমিশনার মফিজ উদ্দিন আহমাদ বলেন, একটি ভালো হেলমেট কেমন হবে সেটা আমরা আলোচনা করে জানিয়ে দিবো।

সর্বাধিক পঠিত