প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কুমিল্লায় স্ত্রীকে হত্যা-ঘাতক স্বামী আটক

মাহফুজ নান্টু, কুমিল্লা : কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে স্ত্রী খালেদা আক্তারকে (২৩) গলাটিপে হত্যা করে পালিয়েছে স্বামী মোজাম্মেল হোসেন রাজন। শনিবার ভোর রাতে নাঙ্গলকোট পৌরসভার পূর্ব দৈয়ারা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে । নিহত খালেদা আক্তার নাঙ্গলকোট পৌরসভার পূর্ব দৈয়ারা গ্রামের মোবারক হোসেনের মেয়ে। ঘাতক স্বামী মোজাম্মেল হোসেন রাজন চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জগন্নাথ ইউনিয়নের ষাটিশক গ্রামের নুরে আলমের ছেলে। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। একইদিন দুপুরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার হাসানপুর রেল স্টেশন এলাকা থেকে ঘাতক স্বামী মোজাম্মেল হোসেন রাজনকে আটক করেছে।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ৫ বছর পূর্বে নাঙ্গলকোট পৌরসভার পূর্ব দৈয়ারা গ্রামের মোবারক হোসেনের মেয়ে খালেদা আক্তারের সাথে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জগন্নাথ ইউনিয়নের ষাটিশক গ্রামের নুরে আলমের ছেলে মোজাম্মেল হোসেন রাজনের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় খালেদার পরিবার জমি বিক্রি করে যৌতুক হিসাবে মোজাম্মেল হোসেনকে নগদ এক লক্ষ টাকা ও আসবাব পত্র প্রদান করেন। বিয়ের পর থেকে মোজাম্মেল স্ত্রীকে নিয়ে শশুরালয়ে বসবাস করে আসছিলেন। খালেদা আক্তার বাপের বাড়ি থাকা নিয়ে প্রায় স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাধ লেগে থাকত। প্রতিদিনের ন্যায় শুক্রবার রাতে মোজাম্মেল হোসেন শ্বশুর বাড়ি এসে রাত্রি যাপন করেন। শনিবার ভোর রাতে মোজাম্মেল হোসেন তার স্ত্রীকে নিয়ে শশুরবাড়ীর পাশর্^বতী পকুরে গোসল করতে যায়। সেখানে তাদের মধ্যে পারিবারিক বিষয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় মোজাম্মেল পুকুর পাড়ে খালেদাকে গলাটিপে হত্যা করে। এসময় ঘাতক মোজাম্মেল লাশ পুকুর পাড়ে রেখে পালিয়ে যায়। সকালে বাড়ীর লোকজন পুকুর পাড়ে খালেদার লাশ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। খালেদার মীম নামে চার বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

খালেদার পিতা মোবারক হোসেন বলেন, শুক্রবার রাতে মোজাম্মেল হোসেন রাজন আমাদের বাড়িতে আসে এবং খাবার খেয়ে রাজন ও খালেদা আমাদের আরেকটি ঘরে ঘুমিয়ে পড়ে। শনিবার ভোরে পুকুর পাড়ে খালেদার লাশ পড়ে থাকতে দেখে পাশের বাড়ির লোকজন আমাদেরকে খবর দেয়। পারিবারিক ঝগড়ার জের ধরে রাজন আমার মেয়েকে হত্যা করেছে। এব্যাপারে খালেদার পিতা মোবারেক হোসেন থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

নাঙ্গলকোট থানার ওসি (তদন্ত) আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছি এবং স্বামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলা তদন্তপুর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত