প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শর্তের বেড়াজালে আটকে আছে তিনটি ব্যাংকের অনুমোদন

রমজান আলী : শর্তের বেড়াজালে আটকে আছে তিনটি ব্যাংকের অনুমোদন। আদালতের জটিলতা, প্রস্তাবে ও নথিপত্রে কিছু ঘাটতি, মালিকের সম্পত্তির হিসাবে গড়মিল থাকায় অনুমোদন পেতে বিলম্ব পোহাতে হচ্ছে তিনটি ব্যাংকের। এক সাথে চারটি ব্যাংকের অনুমোদন পাওয়ার কথা ছিল কিন্তু একটি ব্যাংকের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। দেশে বাণিজ্যিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়েছে পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্টের ‘কমিউনিটি ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড’।

বাকি তিনটি ব্যাংকের অনুমোদন শর্তের বেড়াজালে আটকে আছে কারণ শর্ত পূরণ না করায় লাইসেন্স না দিয়ে অপেক্ষায় রাখা হয়েছে পিপলস ব্যাংক, বেঙ্গল ব্যাংক ও সিটিজেন ব্যাংককে।

সিরাজুল ইসলাম বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পর্ষদ সভায় চারটি ব্যাংকের প্রস্তাব তোলা হয়। এর মধ্যে একটি ব্যাংককে চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বাকি তিনটি ব্যাংককে শর্তসাপেক্ষে অনুমোদনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। তাদের প্রস্তাবে ও নথিপত্রে কিছু ঘাটতি ও ক্রটি রয়েছে। সেগুলো সংশোধন করে দিলেই পর্ষদ অনুমোদন দেবে।

চূড়ান্ত অনুমোদন না পাওয়া ব্যাংকের বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুখপাত্র বলেন, বেঙ্গল ব্যাংকের উদ্যোক্তা পরিচালকদের তিনজনের বিষয়ে উচ্চ আদালতে কর-সংক্রান্ত মামলা চলছে। সেগুলো নিষ্পত্তি করে আমাদের জানালে পর্ষদ অনুমোদন দেবে। পিপলস ব্যাংকের উদ্যোক্তা এমএ কাশেমের বিদেশে কী পরিমাণ সম্পত্তি রয়েছে, তা আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জমা দিতে হবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সেটি বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠালে তা পর্ষদে উপস্থাপন করা হবে। পর্ষদ সেটি বিবেচনা করে ব্যাংক স্থাপনের আগ্রহপত্র (লেটার অব ইনটেন্ট) দেবে। আর সিটিজেন ব্যাংকের প্রস্তাবে কিছু ঘাটতি রয়েছে। সেগুলো ঠিকঠাক করে উপস্থাপন করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ঠিকঠাক করে উপস্থাপন করার পরেই অনুমোদন দেয়া হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত