প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বরিশাল-৫
নৌকার পক্ষে নারীদের ঐক্য

খোকন আহম্মেদ হীরা, বরিশাল : চরমোনাই পীরের জন্মস্থান বরিশাল সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নের কাগাশুরা গ্রাম। যুগের পর যুগ ধর্মীয় আবহয়ের কারনে চরবাড়িয়াসহ পুরো সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের নারীরা ছিলেন ঘরকুনে। জরুরী প্রয়োজন ছাড়া তাদের ঘরের বাহির যেতে বারন ছিলো। সেই ঘরকুনে নারীরা আজ রাজনীতির মাঠে অধিকারের কথা বলছেন। বাল্যবিয়ে রোধে কাজ করছেন। নিজেরা স্বাবলম্বী হয়েছেন। অপর দুঃস্থ নারীদেরও স্বাবলম্বী হতে উৎসাহ যোগাচ্ছেন। প্রকাশ্যে তারা হাজার হাজার নারী ও পুরুষের উপস্থিতিতে সভায় বক্তব্য রাখছেন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নারীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে উন্নয়নের প্রতীক নৌকার পক্ষে মাঠে নেমে ভোট চাইছেন।

মাত্র একবছরের মধ্যে সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়নের সর্বত্র নারী জাগরন শুরু হয়েছে। আর এ নারী জাগরনে অগ্রনী ভূমিকা রেখে সর্বত্র ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘এস আর সমাজ কল্যান সংস্থা’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির সদস্য আলহাজ্ব মোঃ সালাহউদ্দিন রিপন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সদর উপজেলার সর্বত্রই এখন নারী জাগরন শুরু হয়েছে।

কাগাশুরা গ্রামের রেহেনা বেগম (৩৮) বলেন, দিনমজুর স্বামীর সংসারে কোন একমতে তাদের সংসার চলছিলো যেমন নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা। এরইমধ্যে গত একবছর পূর্বে স্বেচ্ছাসেবী এস আর সমাজ কল্যান সংস্থার চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন রিপন আমাকে হাঁস, মুরগী ও পশু পালনের জন্য আর্থিক সহযোগিতা করেছে। আমার ছেলের পরীক্ষার ফি দিয়েছে। বৃদ্ধ শ্বাশুড়ির চোখের চিকিৎসা করিয়ে তাকে দৃষ্টি ফিরিয়ে দিয়েছে। এস আর সমাজ কল্যান সংস্থার সহযোগিতায় আজ আমরা পুরোপুরি স্বাবলম্বী। তাই সংস্থার চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন রিপনের পক্ষে নৌকার মার্কায় ভোট দেয়ার জন্য আমরা গ্রামঘুরে বেড়াচ্ছি। কহিনুর বেগম (৪০) নামের আরেক গৃহবধূ বলেন, এস আর সংস্থা আমাদের নারীদের স্বাবলম্বী হতে শিখিয়েছে। আর্থিক সহযোগিতা করেছে। বাড়ির নির্মানের জন্য ঢেউটিন দিয়েছে। গ্রামের ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়ার জন্য আর্থিক অনুদানের পাশাপাশি নারী অধিকার আদায় করতে শিখিয়েছে। তাই আমরা চাচ্ছি আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সদর উপজেলার কৃতি সন্তান সালাউদ্দিন রিপনকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে। তাহলে আমরা নারীরা একজোট হয়ে নৌকাকে বিজয়ী করবো।

এস আর সমাজ কল্যান সংস্থার উদ্যোক্তা সালাহউদ্দিন রিপন বলেন, প্রায় এক বছরে সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে সংস্থার মাধ্যমে এক লাখ পরিবারকে বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা করা হয়েছে। উপকারভোগীদের ৯০ শতাংশই নারী। কারন নারী সমাজে অবহেলিত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীর ক্ষমতায়নের জন্য কাজ করছে। তাই বিশ্ব মানবতার মা শেখ হাসিনার একজন সামান্য সৈনিক হিসেবে আমি নারীদের ভাগ্যের উন্নয়ন করে অধিকার আদায়ের জন্য কাজ করেছি। নারীদের নিয়ে সরকারের নানা উন্নয়ন কর্মকান্ডের প্রচারনা, তাদেরকে নিয়ে উঠান বৈঠক ও সমাবেশ করছি। যাতে করে নারীরা সমাজের অবহেলিত এই কুসংস্কারটি দুর হয়। নারী জাগরনে অগ্রনী ভূমিকা পালন করা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিক লীগের উপদেষ্টা আলহাজ্ব মোঃ সালাহউদ্দিন রিপন আরও বলেন, বরিশাল-৫ (সদর) আসনের সর্বস্তরের নারীরা আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমাকে একপ্রকার জোরপূর্বক দলের প্রার্থী হবার জন্য দাবি করেছেন। তৃণমূলের চাওয়া থেকেই আমি নিজেকে প্রার্থী ঘোষনা করে প্রচার-প্রচারনা চালাচ্ছি। দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীক উপহার দিলে একমাত্র আমি-ই স্থায়ী বাসিন্দা হওয়ার কারণে শতভাগ বিজয়ের আশা করছি। জীবনে যতোদিন বেঁছে আছি ততোদিন আমি বঙ্গবন্ধুর আর্দশে এলাকার উন্নয়নে নিজেকে জড়িয়ে রাখতে চাই।

চরমোনাই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য পারুল বেগম ও রেহানা বেগম বলেন, বরিশাল-৫ আসনের নারী-পুরুষরা একত্রিত হয়ে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারী জাগরনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করা সালাহউদ্দিন রিপনকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে জোর দাবি করছি। সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান খোকন বলেন, দলীয় মনোনয়ন নির্বাচনে জয়-পরাজয় প্রশ্নে যেমন একটা বিশাল শক্তি, তেমনি এ শক্তির প্রধান নিয়ামক হচ্ছে জনগণ। একটা প্রতীক নিয়ে তাদের কাছে যাওয়াই কেবল নয়, তাদের জন্য প্রার্থী কী করেছেন সেটাও তখন প্রধান ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়ায়। নির্বাচনে জিতলে এই করব সেই করব এমনটা সবাই বলে। নির্বাচনী মাঠে নামার আগেই সাধারণ মানুষের জন্য কে কী করেছেন তার একটা হিসেব যদি দেয়া যায় তাহলে এটা পরিস্কার হয় যে কেবল ক্ষমতার লোভ নয়, সাধারণ মানুষের জন্য কিছু করার ইচ্ছে থেকেই আসলে মাঠে নামা। সালাহউদ্দিন রিপন মূলত সেই চেষ্টাই করেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ