প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শাহরুখকে দেখলে ইডেনে টেস্ট না খেলার দুঃখ হয় লারার

স্পোর্টস ডেস্ক: ক্রিকেটার হিসেবে ইডেনে কোনও টেস্ট খেলা হয়নি তার। তাই আজও আক্ষেপ করেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি ব্রায়ান চার্লস লারা। শুক্রবার সন্ধেয় তার মনের সেই দুঃখ উগরে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘প্রিয় ক্রিকেটার’ বলছিলেন, ‘‘ইডেনে কোনও টেস্ট খেলতে পারিনি। ভাবলে লজ্জা লাগে। সব চেয়ে বড় হতাশা।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘শেষ বার যখন ইডেনে এসেছিলাম তখন শাহরুখ খান হাজির ছিলেন। ত্রিনিদাদের বসে আইপিএলে যখন এই মাঠে শাহরুখকে উৎসব করতে দেখি তখন দুঃখটা বাড়ে।’’

লারার পাশেই বসে ছিলেন ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটের আর এক তারকা কার্ল হুপার। তিনি আবার জানান, পঁচিশ বছর আগে এক নভেম্বর মাসের রাতে ইডেনে অনিল কুম্বলেকে সে ভাবে গুরুত্ব না দেওয়ার ফল কী ভাবে ভুগতে হয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। হিরো কাপ ফাইনালের সেই ম্যাচে ১২ রানে ছয় উইকেট পেয়েছিলেন কুম্বলে। কাপটাও উঠেছিল তৎকালীন ভারত অধিনায়ক আজহারউদ্দিনের হাতে। জানিয়ে হুপার বলেন, ‘‘বিরাট কোহালিকে দেখলে ওর আক্রমণাত্মক মেজাজ টের পাবেন। কিন্তু কুম্বলেকে দেখলে বুঝতেই পারবেন না ওর মনের ভিতর কী চলছে।’’

মহম্মদ আজহারউদ্দিন শোনাচ্ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ‘অন্য রকম’ বলের জন্য কেন কপিলের দু’ওভার বাকি থাকতেও অজয় জাডেজার পরামর্শে সচিন তেন্ডুলকরকে সেই ঐতিহাসিক ওভার করতে ডেকেছিলেন। যা শুনে মঞ্চে বসেই স্মৃতি রোমন্থনে ডুব মারলেন রবিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টি টোয়েন্টি ম্যাচের ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। বললেন, ‘‘তখন বয়স মোটে ছয়। তবে শেষ ওভারে সচিনের বল করে জেতানোর পড়ে উৎসবটা মনে আছে।’’ এ রকম মুঠো মুঠো নস্ট্যালজিয়াকে সঙ্গী করেই শুক্রবার সন্ধেয় পালিত হল ইডেনে প্রথম নৈশালোকে ভারতের হিরো কাপ জয়ের পঁচিশ বছর। নিখাদ ক্রিকেট আড্ডায় উঠে এল সেমিফাইনাল ও ফাইনাল ম্যাচের পরে ইডেনে সে দিন হাজির এক লক্ষ দর্শকের কাগজের মশাল হাতে দাঁড়িয়ে পড়া। চলে এল খেলার মাঝপথে গন্ধগোকুল ঢুকে পড়ার প্রসঙ্গ।’’ ফাইনালের নায়ক অনিল কুম্বলেও দেখা দিলেন পর্দায়। বললেন, ‘‘মাঠে শিশির পড়ছিল ড়–ব। তাই বল গ্রিপ করতে পারছিলাম না। তবে একটা বল এত জোরে পিছলে যায় যে উইনস্টন বেঞ্চামিন ব্যাট নামাতে পারেনি।’’
সিএবি প্রেসিডেন্ট সৌরভ শোনান ক্লাব হাউসের একতলায় বসে তাঁর সেমিফাইনাল, ফাইনাল ম্যাচ দেখে আনন্দে মেতে ওঠার গল্প।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ