প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রশাসনের আন্তরিকতার অভাবে বিচারকাজে অগ্রগতি নেই: রুনির ভাই নওশের রোমান

অপু খান : সাগর-রুনির হত্যা মামলার বাদী রুনির ভাই নওশের রোমান বলেছেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর আন্তরিকতা ও সদিচ্ছার অভাবে ৬ বছর পার হলেও সাগর -রুনি হত্যার বিচার প্রক্রিয়া শুরু হয়নি। বিবিসি বাংলাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, আমার কাছে মনে হয় এতো আলোচিত একটি ঘটনার সূত্র খুঁজে বের করা আমাদের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর সদস্যদের জন্য খুব একটা কঠিন কাজ নয়। অভিযোগ করে নওশের বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আন্তরিকতার অভাবই বিচারকাজে অগ্রগতি না হওয়ার মূল কারণ।

এ প্রসঙ্গে মানবাধিকারকর্মী তাহমিনা রহমান জানান, আইনি তদন্তে বা আদালতের বিচারিক প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রিতা শুধু যে সাংবাদিকদের মামলার ক্ষেত্রেই দেখা যায়, সেরকমটা নয়। বাংলাদেশে বিচার বিভাগ অনেকটা প্রথাগতভাবেই দীর্ঘসূত্রিতা বজায় রেখে কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। তিনি বলেন, আদালতে কার্যক্রম চলাকালে বারবারই নতুন করে তারিখ দেয়া হয়। এই তারিখ দেয়ার ক্ষেত্রে কিছু সুস্পষ্ট নিয়ম রয়েছে, যেগুলো অনেক সময়ই মানা হয় না। এটা একটা প্রচলিত প্রথার মত চলছে। এছাড়া কোনো বিশেষ মামলার শুনানির সময় আদালতের বিচারক বদলি হলে বা পরিবর্তিত হলে নতুন বিচারক অনেক সময় পুরনো মামলার কার্যক্রম চালাতে অনীহা প্রকাশ করেন, যে কারণে দীর্ঘসূত্রিতার জটে পড়ে মামলা গুলো।

সিনিয়র সাংবাদিক ইশতিয়াক রেজা বলেন, সাংবাদিক হত্যা বা নির্যাতনের ঘটনায় বিচার না হওয়ার কারণ হিসেবে সাংবাদিকদের সংগঠনগুলোর নিষ্কৃয়তাও দায়ি। তিনি বলেন, সংগঠনগুলোর মধ্যে বিভেদ এবং সাংবাদিকদের মধ্যে রাজনৈতিক বিভাজন থাকায় সংগঠনগুলোও প্রয়োজনে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করতে পারছে না। সংবাদকর্মীরা তাদের প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে সাধারণত আইনি সহায়তা পান না, যেটিকে বাংলাদেশের গণমাধ্যমগুলো প্রাতিষ্ঠানিক দুর্বলতা হিসেবে কাজ করেন।

উল্লেখ্য, বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সমীক্ষার হিসেব অনুযায়ী, বাংলাদেশে ২০০১ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত অন্তত ২৩ জন পেশাদার সাংবাদিক খুন হয়েছে এবং ৩ জনের ক্ষেত্রে মামলার চূড়ান্ত বিচার সম্পন্ন হয়েছে।

সূত্র :বিবিসি বাংলা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ