প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাসন থেকে দেশে ফিরেছেন মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট নাশিদ

ইমরুল শাহেদ : মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ নির্বাসন জীবনের যবনিকাপাত ঘটিয়ে বৃহস্পতিবার দেশে ফিরে এসেছেন। এর দু’দিন আগে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট নাশিদের গ্রেফতারি পরোয়ানা প্রত্যাহার করে নেয়। বিতর্কিত সন্ত্রাসের অভিযোগে তাকে ১৩ বছরের জেলের সাজা দেওয়া হয়। দেশে ফেরার পর মালদ্বীপের নব-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সলিহ এবং শত শত সমর্থক তাকে মালে বিমানবন্দরে স্বাগত জানায়।
মালদ্বীপের নতুন সরকারে মোহাম্মদ নাশিদ কি ধরনের ভূমিকা পালন করবেন তা এখনও জানান দেওয়া হয়নি। সুপ্রিম কোর্ট থেকে আগেই বলা হয়েছিল, নাশিদকে ততক্ষণ পর্যন্ত আটক করা যাবে না, যতক্ষণ না তিনি সাজার বিরুদ্ধে আপিল না করেন এবং সেই আপিলের শুনানি না হয়।
২০১৬ সালে জেল অবস্থায় ৫১ বছর বয়সী গণতন্ত্রপ্রেমী নাশিদ চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার পর আদালত তাকে পলাতক ঘোষণা করেছিল। প্রেসিডেন্ট আবদুল্লা ইয়ামিনের শাসনামলে তিনি দেশে ফিরলেই গ্রেফতার হতেন। কারণ ইয়ামিনের শাসনামলে তার বিরোধী সকলকেই হয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে, নয় বিদেশে চলে যেতে হয়েছে। তারপরও শক্ত অবস্থানে থাকা ইয়ামিনকে গত মাসের নির্বাচনে হেরে যেতে হয়েছে এবং ১৭ নভেম্বর তাকে ক্ষমতা ছেড়ে দিতে হবে। নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন নাশিদের মালদিভিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টি (এমডিপি) থেকে মনোনয়ন পাওয়া। নাশিদ নিজেই ইয়ামিনের সঙ্গে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের বাধার মুখে সেটা পারেননি।
নির্বাচনে ইয়ামিন পরাজিত হওয়ার পর রাজবন্দীরা মুক্তি পেয়েছে এবং নির্বাসিতরাও ফিরে আসতে শুরু করেছেন। মালদ্বীপ এখন নতুন নেতৃত্বের অপেক্ষায় রয়েছে। জাতিসংঘ বলেছে, গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ২০০৮ সালে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট নাশিদকে যে সন্ত্রাসের অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে, তা ছিল একেবারেই পরিকল্পিত। ইয়ন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ