Skip to main content

২০৩০ ভিশনে সংশোধন আনছে সৌদি

২০৩০ ভিশনে সংশোধন আনছে সৌদি
রাশিদ রিয়াজ : ২০৩০ ভিশন নামে পরিচিত বিশাল আকারের সংস্কার নিয়ে যে সৌদি আরব সরকার আগাতে শুরু করেছিল তা হোঁচট খাওয়া ২০২০ সালের মধ্যে এ লক্ষ্যমাত্রায় বেশ কিছু সংশোধন আনা হচ্ছে। এধরনের ভিশন বাস্তবায়ন করতে যেয়ে ক্রাউনপ্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের নেয়া অনেক প্রকল্প বাস্তবায়ন করা যে আদতে সম্ভব নয় তা উপলব্ধি করতে শুরু করেছে সৌদি সরকার। এখন সৌদি সরকার মনে করছে কিছু কিছু পরিকল্পনা অতিশয় আশাবাদী ও ক্রাউনপ্রিন্সের জন্যে চ্যালেঞ্জ হয়ে দেখা দিয়েছে। এছাড়া কাতারের বিরুদ্ধে অবরোধ, ইয়েমেনে সৌদি আগ্রাসন, ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়ন, ফিলিস্তিনি ইস্যুতে এক প্রকার নিরব থাকা ও সর্বশেষ সাংবাদিক জামাল খাশোগজি হত্যাকা-ে ক্রাউনপ্রিন্স ও সৌদি সরকারের ভাবমূর্তি যে ব্যাপকভাবে বিনষ্ট হয়েছে তাতে ভিশন ৩০ বাস্তবায়ন অনেকটাই দুরহ হয়ে পড়েছে। সর্বশেষ রিয়াদে বিনিয়োগ সম্মেলনে অনেক আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান ও শীর্ষ বিনিয়োগকারীরা যোগদান থেকে বিরত থাকে। ২০১৬ সালে ভিশন ২০৩০ ঘোষণা করা হয়। তেল নির্ভর অর্থনীতির বাইরে বিনিয়োগ বৃদ্ধি করে রফতানি আয় ব্যাপক বৃদ্ধি করা ছিল এ ভিশনের অন্যতম লক্ষ্য। এজন্যে সৌদি নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি, সিনেমা হল চালু সহ বিভিন্ন ধরনের সংস্কার আনা হয়। বেশকিছু ধনাঢ্য ব্যক্তি, সাবেক আমলা ও মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এর পাশাপাশি সরকারি কর্মচারীদের বিভিন্ন ভাতা হ্রাস ও বিদেশি শ্রমিকদের ব্যাপকভাবে ছাঁটাই শুরু হয়। কিন্তু এর বিপরীতে যে সৌদি নাগরিকদের বিকল্প কর্মসংস্থানে নিয়োজিত করা তেমন কোনো উৎপাদনশীল খাতের বিনিয়োগ ক্রাউনপ্রিন্স আনতে পারেননি। কারণ এজেন্য যে প্রশিক্ষণ ও দক্ষ জনবল তৈরি তা সৌদিতে গড়ে তোলা সম্ভব হয়নি। ৩৩ বছরের মোহাম্মদ বিন সালমান এক্ষেত্রে সঠিক নেতৃত্ব দিতে পারেননি। একই সঙ্গে সৌদিতে মুক্তবাক মানুষের ওপর নির্যাতনের খড়গ আরো বেশি শক্তিশালী হয়ে নেমে এসেছে। ইয়েমেন যুদ্ধ বন্ধের জন্যে এখন খোদ যুক্তরাষ্ট্র আহবান জানাচ্ছে।

অন্যান্য সংবাদ