Skip to main content

লায়ন এয়ার; এর আগের ফ্লাইটেই ত্রুটির কথা জানিয়েছিলেন পাইলট

সান্দ্রা নন্দিনী : ইন্দোনেশিয়ায় লায়ন এয়ারের বিধ্বস্ত বিমানের আগের ফ্লাইটটিতেও উড্ডয়নের পরপরই যান্ত্রিক ত্রুটির কথা জানিয়ে কন্ট্রোল টাওয়ারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন পাইলট। তবে অল্পসময়ের মধ্যেই ত্রুটিটি নিয়ন্ত্রণে চলে আসায় বিমানটি যাত্রা অব্যাহত রাখে এবং সফলভাবে গন্তব্য জাকার্তায় পৌঁছায়। রয়টার্স জানায়, এর কয়েকঘণ্টা পরের ফ্লাইটেই বিধ্বস্ত হয় বিমানটি। প্রসঙ্গত, সোমবার ১৮৯ আরোহী নিয়ে লায়ন এয়ারের বিমানটি সাগরে বিধ্বস্ত হয়। জেটি-৬১০ ফ্লাইটটি জাকার্তা বিমানবন্দর থেকে ইন্দোনেশিয়ার দ্বীপ শহর পাংকাল পিনাংয়ের উদ্দেশে উড্ডয়নের কয়েক মিনিটের মাথায় নিয়ন্ত্রণকক্ষের সঙ্গে এর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে সাগরে গিয়ে পড়ে। ঘটনাস্থল থেকে যাত্রীদের বিভিন্ন জিনিসপত্র উদ্ধার করা হয়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, বিমানটি সমুদ্রের ২০ থেকে ৩০ মিটার গভীরে বিধ্বস্ত হয়েছে। বালি-নুসা টেঙ্গারা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের প্রধান হেরসন রয়টার্সকে জানান, বিধ্বস্ত হওয়ার আগের ফ্লাইটে উড্ডয়নের পরপরই যান্ত্রিকত্রুটির কথা পাইলট জানিয়েছিলেন। তবে, কিছুক্ষণের মধ্যেই তিনি জানান, বিমান স্বাভাবিক হয়েছে। ফেরত যাওয়ার আর দরকার হবে না। বিধ্বস্ত বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স জাকার্তায় অবতরণ করে রাত ১১টার দিকে। আর সকাল ৬টার পরে উড্ডয়ন করে তার শেষ ফ্লাইটে। এ ক্ষেত্রেও উড্ডয়নের পরপর বৈমানিক বিমানবন্দরে ফেরত আসার প্রয়োজনীয়তা জানিয়ে বার্তা পাঠালেও ফেরার আর সুযোগ পাননি। রয়টার্স

অন্যান্য সংবাদ