প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সংলাপ মন্দের ভালো, না আন্দোলন চলবে ?

মোহাম্মদ আবদুল অদুদ : বৃহস্পতিবার ১ নভেম্বর ২০১৮ গণভবনে ঐক্য ফ্রন্টের নেতৃবৃন্দের সাথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এটাকে মন্দের ভালো বলা চলে। কারণ, প্রধানমন্ত্রী সংলাপের চিঠিতেই উল্লেখ করেছেন, সংবিধানসম্মত যে কোন বিষয়ে আলোচনা করবেন।

সংবিধানের বাইরে যাওয়া, নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার, খালেদা জিয়ার মুক্তি কিংবা সংসদ ভেঙ্গে দেয়াসহ ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের অন্য কোনো দাবি-দাওয়ার সমাধান পাওয়ার সুযোগই না। বরং শেখ হাসিনার কাছ থেকে উন্নয়নের ফিরিস্তি শুনে আসলেন ঐক্যফ্রন্ট নেতারা। তফসিল ইসির কাজ আর খালেদা জিয়ার মামলা আইন-আদালতের কাজ বলে বিষয় দুটিকে এড়িয়ে গেলেন প্রধানমন্ত্রী। কেন তাহলে এই সংলাপ?

আমাদের দেশে নির্বাচনকালীন যে সহিংস কর্মকা- হয়ে আসছে, তাতে যে প্রাণহানির ঘটনা ঘটে, তা থেকে বোধ হয় কিছুটা পরিত্রাণ পেতে পারে জাতি। সুন্দর একটি পরিবেশে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হতে পারে। এঅর্থে ড. কামাল বললেন আলোচনা ভালো হয়েছে, যদিও মির্জা ফখরুল বললেন সন্তুষ্ট নন তারা। ক্ষমতার স্বাদ পেতে মরিয়া বিরোধী জোটের নানা সমালোচনা থাকলেও সংলাপটি আসলে মন্দের ভালো, যেখানে সভা-সমাবেশ করার সুযোগ, রাজনৈতিক মামলায় হয়রাণি বন্ধে বিএনপির কাছে তালিকা চাওয়া ও বিদেশী পর্যবেক্ষকদের নির্বাচন মনিটরিংয়ের সুযোগসহ নানা সুযোগ বেরিয়ে এসেছে প্রায় সাড়ে তিন ঘন্টার এ আলোচনায়। প্রধানমন্ত্রীর এমন উদ্যোগকে আনুষ্ঠানিক স্বাগত জানিয়েছেন খোদ ঐক্যফ্রন্টের নেতারা।

বিগত দিনে সংলাপগুলো ব্যর্থ হওয়ায় অনেকে হতাশ। কিন্তু এ সংলাপের মাধ্যমে যে ধারার সৃষ্টি হয়েছে, তা অব্যাহত থাকলে গণতান্ত্রিক পরিবেশ, পরমতসহিষ্ঞুতার কিছুটা হলেও উন্নয়ন হবে, এটা বলা যায়। তবে সংলাপ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে ঐক্যফ্রন্ট নেতা জেএসডির আ.স.ম আবদুর রব বলেছেন, আন্দোলন চলবে। আন্দোলন দেখার প্রতীক্ষায়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ