Skip to main content

সংসদ ভেঙ্গে নির্বাচনকালীন সরকারের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান

রাশিদ রিয়াজ : ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে গণভবনে সরকারি দল আওয়ামী লীগ ও এর শরীক দলগুলোর সঙ্গে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে প্রায় পৌণে চার ঘন্টার যে সংলাপ হয় তাতে নির্বাচনকালীন সরকারের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। সংলাপে অংশ নেয়ার সময় দু’পক্ষের নেতাদের যে হাস্যজ্বল অবয়ব ছিল, গণভবন থেকে বের হয়ে আসার পর তা তেমনটা দেখা যায়নি। বিএনপির মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তারা সংলাপে সন্তষ্ট নয়। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আলোচনা অব্যাহত থাকবে। অন্যান্য দলের সঙ্গে সংলাপ চলবে। আলোচনায় কি কি বিষয় প্রাধান্য পেয়েছে সে ব্যাপারে ওবায়দুল কাদের বলেন, কিছু কিছু বিষয়ে একমত হয়েছি, বিদেশি পর্যবেক্ষক নির্বাচনে পর্যবেক্ষণ করবেন, তাদের এ প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আমাদের সমর্থন থাকবে। সীমিতভাবে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ হবে। সেনাবাহিনী নিয়োগের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, কোনো নির্বাচনে এর আগে সেনাবাহিনীর ম্যাজিস্ট্রেসি পাওয়ার ছিল না। এখন কেন চান? ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে পৃথিবীর কোনো কোথাও নির্বাচন হয় না। বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী ঐক্যফ্রন্টের কাছে তালিকা চেয়েছেন এবং তা তদন্ত করে দেখা হবে।খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এটি সংলাপের নয়, আদালতের বিষয়। ঐক্যফ্রন্টের সভাপতি ড. কামাল হোসেন রাতে তার বাসভবনে সাংবাদিকদের বলেন, সুনির্দিষ্ট কোনো সমাধান আসেনি। সভা-সমাবেশ অনুষ্ঠান ছাড়া কোনো বিষয়ে বিশেষ সমাধান পাইনি। বিএনপির মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। বেগম জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী সুনির্দিষ্ট কিছু বলেননি। জেএসডি নেতা আসম আব্দুর রব বলেন, আমরা আমাদের তরফ থেকে পরিস্কার কর্মসূচি দিয়েছি। আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

অন্যান্য সংবাদ