প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

২ সাংবাদিককে প্রকাশ্যে পেটালেন সংসদ সদস্য ও তার ছেলে

আরএইচ রফিক, বগুড়া : বগুড়ায় এবার তুচ্ছ ঘটনায় প্রকাশ্যে ২জন সাংবাদিককে পেটালেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও তার ছেলে । ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দুপুরের বগুড়ার শিবগঞ্জের মহাস্থান এলাকায়।
প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগী সাংবাদিকরা জানান, বেলা আনুমানিক ২টার দিকে পূর্ব ঘোষিত এক কর্মসূচিতে মহাস্থান উচ্চ বিদ্যালয়ের চতুর্থ তলা একাডেমীক ভবনের ফলক উম্মোচন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্থানীয় শিবগঞ্জ নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য ও জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শরিফুল ইসলাম জিন্নাকে প্রধান অতিথি হিসাবে আমন্ত্রন করা হয় ।

সূত্র জানায়, মহাস্থান উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির দায়িত্বে রয়েছেন উল্লেখিত এমপির মামা রফিকুল ইসলাম। প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির অবিভাবক সদস্য হিসাবে রয়েছেন সাংবাদিক সাজু। ফলক উম্মোচনী আয়োজন এর দায়িত্বে ছিলেন কমিটির সভাপতি ও স্কুলের প্রধান শিক্ষক। বৃহস্পতিবার বেলা ২টার দিকে সংসদ সদস্য ও আমন্ত্রিত প্রধান অতিথি শরিফুল ইসলাম জিন্না তার লোকজন নিয়ে অনুষ্ঠানে পৌছলে সেখানে লোকজনের উপস্থিতির ভাটা দেখে ক্ষুব্দ হন। এর এক পর্যায়ে তিনি তার তার বক্তব্য শেষ করে স্টেজ থেকে নেমে এলে সামনে সাংবাদিক সাজুকে দেখতে পেয়ে ক্ষুব্ধ হন এবং তিনি তার ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করে আঞ্চলিক পত্রিকা দৈনিক মহাস্থানের শিবগঞ্জ প্রতিনিধি সাজুর কলার চেপে ধরে তাকে টেনে হিচরে নিয়ে যেতে থাকেন। এবং জনসম্মুখে চড়-থাপ্পর মারতে থাকে।

তিনি মনে করেন সাংবাদিক সাজু এজন বিরোধী ঘরনার পত্রিকা দৈনিক সাতমাথার সাংবাদিক ও সমর্থক। যে কারনে সঠিক ভাবে দাওয়াত পত্র বিতরন না করায় তার অনুষ্ঠানে লোকজনের সমাগম কায়েম হয়নাই । এসময় উপস্থিত জনতা একজন অনির্বাচিত এমপি তার ছেলের এহেন ভূমিকা দেখে হতভম্ব হয়ে পড়েন । এদিকে অনুষ্ঠানের ভিডিওটি ক্যামেরা ধারন করার সময় এমপি ও তার পুত্রের কার্যকলাপ ক্যামেরা বন্ধি করার সময় নূরন্নবী নামের অপর এক সাংবাদিকের উপর হামলা চালায় এমপি পুত্র ও তার লোকজন । এসময় তার ক্যামেরা সহ আটক সাজুর ভিভিও ক্যামেরা মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়া হয় । পরে তাদের চড় থাপ্পর মারতে মারতে টেনে হিচরে নিয়ে যাওয়া হয় । এক পর্যায়ে সাংবাদিক সাজুকে স্থানীয় একটি কক্ষে আটকে রেখে তার উপর নির্যাতন চালিয়ে আবারো তাকে মারধোর করে এমপির ছেলে হোসেন শরিফ সঞ্চয় । স্থানীয়দের অভিযোগ এসময় মারধোরের শিকার হন স্থানীয় অপর এক সাংবাদিক ।

এদিকে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোটা এলাকায় তীব্র অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় জনতার অভিযোগ জনতার ভোটে নির্বাচিত হলে একজন সংসদ সদস্য কখনোই এধরনের আচরন করতে পারতো না বলে তাদের বিশ্বাস । অন্যদিকে পেশাগত দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় একজন সংসদ ও তার পুত্রের এ ধরনের আচরনে গোটা সাংবাদিক মহলে তীব্র অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ