প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মিয়ানমারের কর্মকর্তারা আইডি কার্ড ছাড়াই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছেন

আসনাত চৌধুরী রিভা : মিয়ানমারের কর্মকর্তারা রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে বুধবার পরিদর্শন করেন। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী গত বছর আগষ্টে রোহিঙ্গাদের ওপর নতুন করে অভিযান চালায়। রোহিঙ্গা অধ্যূষিত এলাকাগুলোতে সেনা সদস্যরা নির্বিচারে গুলি চালায়। এ অভিযানের ফলে ৭ লাখ রোহিঙ্গা পার্শ্ববর্তী বাংলাদেশে আশ্রয় নেন। জাতিসংঘ এ কথা জানিয়েছে।

২০১৭ সালের আগষ্ট মাসে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর হামলা চালায়। সেই হামলায় ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। রাজ্যটিতে সামরিক অভিযান চলাকালে নারীদের ওপর পাশবিক নির্যাতন চালানো হয়। এ ছাড়াও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা রাখাইন রাজ্যের অসংখ্য ঘর-বাড়ি পুড়িয়ে দেয়।কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাতে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে নভেম্বরের মাঝামাঝি সময় থেকে শরণার্থীরা দেশে ফেরা শুরু করবে। কিন্তু জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা জানিয়েছে, রাখাইন রাজ্যে শরণার্থীদের ফিরে যাওয়ার মত পরিস্থিতি এখনো সৃষ্টি হয়নি।

মিয়ানমারের পরাষ্ট্র মন্ত্রাণালয়ের স্থায়ী সচিব এবং মিয়ানমার প্রতিনিধি দলের নেতা মিন্ট থু বলেন, ৫ হাজার শরণার্থীর পরিচয়পত্র পরখ করে দেখা হয়েছে তাদের মধ্যে প্রথম ২ হাজার যাবে নভেম্বরের মাঝামাঝি।

কক্সবাজারের সাংবাদিকদের মিন্ট থু বলেন,‘আমরা মিয়ানমার থেকে শরণার্থীদের সাথে দেখা করার জন্য এসেছি যাতে করে আমরা তাদের ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে বুঝিয়ে ব্যাখ্যা দিতে পারি’।
বুধবার বৈঠকের পর শরণার্থীদের মতামত নেওয়া হয়। তাদের মতামত অনুযায়ী, মিয়ানমারে ফিরে আসার আগে মিয়ানমারের নাগরিকত্ব অধিকারের সঙ্গে জাতিগত গোষ্ঠী হিসেবে স্বীকৃতি চান তারা। ইয়ন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত