প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কালো টাকা বিনিয়োগ করীরা নির্বাচিত হয়ে জনগণের কথা মনে রাখেনা : জি.এম কাদের

মো. ইউসুফ আলী বাচ্চু : জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী জি. এম কাদের বলেছেন, রাজনীতিতে গুণগত পরিবর্তন আনতে আদর্শবান যুব সমাজের বিকল্প নেই।রাজনীতিতে কালো এবং অবৈধ টাকার খেলা চলছে।বৃহস্পতিবার বিকালে জাতীয় পার্টির কাকরাইল কার্যলয়ে যুব দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, যুব সমাজই একটি আধুনিক, উন্নত এবং সম্বৃদ্ধশালী নতুন বাংলাদেশ গড়তে পারবে। যারা এদেশে থেকে অস্ত্রের ঝনঝনানি দূর করবে, প্রতিষ্ঠা করবে আইনের শাসন।

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে দেশের সাড়ে ৪ কোটি বেকারের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দেশ থেকে মাদক নির্মূল করবে। দেশের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করবে।

রাজনীতিতে টাকার খেলার সমালোচনা করে গোলাম মোহাম্মদ কাদের আরো বলেন, যারা ব্যবসা করতে রাজনীতিতে কালো টাকা বিনিয়োগ করে, তারা নির্বাচিত হয়ে দেশের মানুষের কথা মনে রাখেনা। তাই পরিচ্ছন্ন রাজনৈতিক পরিবেশ সৃষ্টিতে যুব সমাজকে এগিয়ে আসনতে হবে।

জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হবে এবং ক্ষমতায় গেলে বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানে ব্যবস্থা করবো। দেশে বেকারত্বের সংখ্যা দিনদিন বাড়ছে। যুবকেরা বেকার হয়ে সংসারের বোঝা হচ্ছে। হতাশাগ্রস্ত থেকে নেশাগ্রস্ত হচ্ছে।যুব সমাজ হতাশায় পড়ে নানা অপরাধের সাথে জড়িয়ে পড়ছে।কর্মসংস্থানের সুযোগ ক্রমেই কমছে।কর্মসংস্থানের জন্য পল্লীবন্ধু এরশাদকে দরকার।

তিনি বলেন, জাতীয় যুব সংহতির সাংগঠনিক শক্তি ও সুসংগঠিত হয়েছে।আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টির ভ্যানগার্ড হিসেবে সক্রিয় ভূমিকা রাখার জন্য যুব সংহতি নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

১লা নভেম্বর, ১৮ইং জাতীয় যুব দিবস পালন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুপুরে কাকরাইলস্থ জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে জাতীয় যুব সংহতির একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি রাজধানীর গুরুত্বপূর্ন সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালি শেষে দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় নেতাকর্মীদের শতস্ফুর্ত উপস্থিতিতে বিশাল যুব সমাবেশে রূপ নেয়। বর্ণাঢ্য কর্মসূচীর শুভ উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি জাতীয় পার্টির মাননীয় কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ামর‌্যান ও জাতীয় যুব সংহতির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আলমগীর সিকদার লোটন এর সভাপতিত্বে এবং জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় যুব সংহতির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ফকরুল আহসান শাহজাদার সঞ্চালনায় যুব সংহতি আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পাটির ভাইস চেয়ারম্যান, অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, জহিরুল ইসলাম জহির, যুগ্ম-মহাসচিব, গোলাম মোহাম্মদ রাজু, শেখ আলমগীর হোসেন, জহিরুল আলম রুবেল, সাংগঠনিক সম্পাদক, আমির উদ্দিন আহমেদ ডালু, বাবু নির্মল দাস।

জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান আরো বলেন, জাতীয় পার্টির আমলে দেশে আইনের শাসন ছিল। তখন বেকার কম ছিল, জীবনের নিরাপত্তা ছিল। জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষ সুখে-শান্তিতে থাকে। রাজনীতির উদ্দেশ্য হলো একটি দেশ ও জাতিকে উন্নতির দিকে নিয়ে যাওয়া। সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন করা। কিন্তু আমাদের দেশের মানুষ এখন ব্যবসা হিসেবে রাজনীতিকে ব্যবহার করে। প্রকৃত নেতা সব ঝুঁকি মোকাবিলা করে মানুষের পাশে থাকেন। নিজে সুযোগ-সুবিধা ভোগ না করে অবহেলিত মানুষের জন্য সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করেন। জাতীয় পার্টি ছাড়া কোনো দল ক্ষমতায় এসে সুশাসন দিতে পারেনি।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা- সুলতান মাহমুদ, মোঃ হেলাল উদ্দিন, এমএ রাজ্জাক খান, ডাঃ সেলিমা খান, মাহমুদ রহমান মুন্নি, আহাদ ইউ চৌধুরী শাহিন, অ্যাড. সাহিদা রহমান রিংকু, মুহাম্মদ মাসুদ চৌধুরী, মাহমুদ আলম, আব্দুস সাত্তার গালিব, আমান উল্লাহ আমান, অ্যাড. আবু তৈয়ব, আহমদে রিয়াজ, মিনি খান, রিতু নুর, মোমেনা বেগম, মন্টি চৌধুরী,
আবু সাদেক বাদল, সাইফুল ইসলাম, কাজী শাহিন, এমএ হান্নান, শফিকুল ইসলাম দুলাল, মোঃ শেখ দ্বীন ইসলাম শেখ, মোঃ নজরুল ইসলাম, যুব নেতা- কবির আহমেদ, শেখ সারোওয়ার, হেলাল খান, ডাঃ আবুল কাশেম, শহিদ হোসেন সেন্টু, মিয়া আলমগীর, আবুল কালাম আজাদ টুলু, এমএম আলমগীর, আলহাজ¦ গাজী, মির্জা ইকবাল, রফিকুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম রুবেল, মোতাহার হোসেন চৌধুরী, মোঃ কামাল হোসেন, মোঃ টিপু মুন্সি, জহির হোসেন, জিয়াউর রহমান বিপুল, হাবিবুর রহমান, মোহাম্মদ উল্লাহ, জারা আলী, শাহিন আলম, মীর বাছেদ, মোঃ আলী হোসেন, নয়ন চন্দ্র পাল, মোর্শেদ হাসান, শাহাদাত হোসেন, শামীম, মোঃ মিলন প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত