প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

টেকনাফে এক মাসে ১২কোটি ৫লাখ টাকার মাদক ও চোরাইপণ্য জব্দ

ফরহাদ আমিন, টেকনাফ (কক্সবাজার): কক্সবাজারের টেকনাফে র‌্যাব-৭ ক্যাম্পের ০১অক্টোবর হতে ৩১অক্টোবর পর্যন্ত র‌্যাবের অভিযানে১২কোটি ৫লাখ টাকার মূল্যমানের মাদক ও বিভিন্ন চোরাইপণ্য জব্দ করা হয়েছে। এসব মাদকদ্রব্য উদ্ধারের ঘটনায় মোট ৮মামলায় ১৩মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে।

র‌্যাব-৭ টেকনাফ ক্যাম্পের ইনচার্জ লেঃ মির্জা মাহাতাব শাহেদ জানান, চলমান মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব।গত ০১অক্টোবর হতে ৩১অক্টোবর পর্যন্ত টেকনাফের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১১কোটি ৮৩লাখ ২হাজার ৫শ’ টাকার মূল্যমানের ২লাখ ৩৬হাজার ৬০৫পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্যর মধ্যে আরও আছে ৮হাজার টাকার মূল্যমানের ১০ক্যান, এনার্জি ডিংক ৪২৪ক্যান,২০লাখ ৬৯হাজার২শ’টাকার মূূল্যমানের ২লাখ ৬হাজার ৯২০পিস মিয়ানমারের সিগারেট,মাদক বিক্রির নগদ ৪৪হাজার ৫শ’টাকা জব্দ করা হয়।

উল্লেখ্য, ‘চল যায় যুদ্ধে, মাদকের বিরুদ্ধে’ এই স্লোগানে দেশব্যাপী র‌্যাবের মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। মূলত ইয়াবা মিয়ানমার হতে পাচার হয়ে টেকনাফে আসত। এরপর বিভিন্ন পরিবহনের মাধ্যমে সারাদেশে সরবরাহ করা হতো। মিয়ানমার হতে নৌ-পথে আসা ইয়াবার চালান গুলো সড়ক, রেল ও বিমানপথে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ছে। র‌্যাব এ সকল মাদক ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনতে দীর্ঘদিন ধরে গোয়েন্দা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

এদিকে মাদক পাচার রোধে গত ২৫ জুলাই হতে টেকনাফে র‌্যাবের অতিরিক্ত ৫টি ক্যাম্প স্থাপনসহ ডগ স্কোয়াড মোতায়েন করা হয়েছে। ফলে মায়নমার হতে টেকনাফ হয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ইয়াবা সরবরাহ দূরূহ হয়ে উঠে। যার ফলে ইয়াবা ব্যবসায়ীরা নিত্য নতুন রুটে ইয়াবা সরবরাহ করতে পরিকল্পনা করছে। ফলে ইয়াবা পাচারকারীরা সুমদ্রপথকে নিরাপদ রুট তৈরির পরিকল্পনা করছেন বলে জানা গেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ