প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘নির্বাচন করার জন্য খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির সুযোগ নেই’

আশিক রহমান : সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলেছেন, সরকার চাইলেও বেগম জিয়াকে নির্বাচন করার জন্য প্যারোলে মুক্তি দিতে পারবে না। কারণ নির্বাচন করার জন্য প্যারোল হয় না। প্যারোল হয় আত্মীস্বজন মৃত্যু বা মৃত্যুশয্যায় থাকলে মুক্তির বিষয়টি বিবেচিত হয়। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি আরও বলেন, নির্বাচন করার জন্য বেগম জিয়ার প্যারোলে মুক্তির সুযোগ নেই। প্যারোলের বাইরে আরও একটি পথ রয়েছে, সেটা হচ্ছে সংবিধানের ৪৯ ধারায় রাষ্ট্রপতির একটা ক্ষমতা রয়েছে, কেউ যদি নিজের দোষ স্বীকার করে মাফ বা ক্ষমা চান তাহলে রাষ্ট্রপতি ক্ষমতা করতে পারেন। কিন্তু আগে দোষ স্বীকার করতে হবে যে, আমি এই কাজটা করেছি, অনুপ্ত। আমাকে মুক্তি দেওয়া হোক। সেটা বয়স বা ইত্যাদি কারণ বিবেচনায় হয়তো রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করতে পারেন। কিন্তু এটাও রেয়ার কেস।

এক প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন করার যোগ্যতা এখন বেগম খালেদা জিয়ার নেই। সংবিধানের ৬৬/২ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, কেউ যদি নৈতিক স্খলনজনিত কারণে দুই বা ততোধিক বছর সাজাপ্রাপ্ত হন তাহলে সাজা খাটার পাঁচ বছর পর্যন্ত তিনি সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। অযোগ্য থাকবেন। বেগম খালেদা জিয়া তো এখন কনভিক্টেড। জেল খাটছেন।

তিনি বলেন, এখন আপিল বিভাগে মামলাটি আসার পর বা হাইকোর্ট বিভাগে যদি মামলা থাকে আপিলে তাহলে সময় লাগবে তার মীমাংসা করতে। লোয়ার কোর্টে যেটা হলো, বিচারিক আদালত, সেটা প্রস্তুত হতে, সার্টিফাইড কপি পেতে, আপিল করতে করতেই তো নির্বাচনের সিডিউল ঘোষণা হয়ে যাবে। আপিলে যদি বেগম জিয়ার সাজা স্থগিত হয় আর জামিন হয়। সাধারণত সাজা স্থগিত করে না, জামিন হতে পারে। সাজা স্থগিত না হয়ে জামিন হলে নির্বাচন করার যোগ্যতা তার থাকবে না। আর সাজা যদি স্থগিত হয়, একইসঙ্গে জামিন হলে তাহলে নির্বাচন করতে পারবেন। এখন প্রশ্ন হচ্ছে- সাাজা স্থগিত হবে কিনা, এটা তো একটা কঠিন কাজ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ