প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিদেশি পশুপাখির ডাকাডাকি

দৈনিক আমাদের সময় : সিলেটের উপকণ্ঠেই নয়নাভিরাম ও বনজসম্পদে ভরপুর টিলাগড় ইকোপার্ক। আগে থেকেই ছিল বানরসহ একাধিক প্রাণীর অবাধ বিচরণ। এবার তাতে যোগ হলো জেব্রা ম্যাকাউ, আফ্রিকান গ্রে, ফানকুনিওর, লাভবার্ডসহ ৬৭ প্রজাতির পাখি ও প্রাণী। তবে এসব প্রাণী দেখতে হলে কাটতে হবে টিকিট। আজ থেকেই সীমিত আকারে টিকিটের মাধ্যমে দর্শনার্থী প্রবেশের অনুমতি দেয়া হবে ইকোপার্কে।
টিলাগড় ইকোপার্কের ফরেস্টার চয়ন ব্রত চৌধুরী বলেন,
‘টিলাগড় পার্কটি দেশের তৃতীয় ইকোপার্ক। সিলেট শহর থেকে আট কিলোমিটার উত্তর-পূর্ব কোনে ছোট ছোট কয়েকটি টিলাসমৃদ্ধ ১১২ একর বন নিয়ে ২০০৬ সালে এটির প্রতিষ্ঠা। এখানে উদ্ভিদ সম্পদের প্রাচুর্যের পাশাপাশি রয়েছে পাখি ও প্রাণীর বেষ্টনী। সিলেটের যত বন্যপ্রাণী রয়েছে, এগুলো সংরক্ষণে টিলাগড় ইকোপার্ক বড় ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন বন কর্মকর্তারা।
এর মধ্যে গত সোমবার গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক থেকে দুটি জেব্রা (একটি মাদি ও একটি পুরুষ), চারটি ম্যাকাউ, চারটি আফ্রিকান গ্রে, চারটি ফানকুনিওর, ৩০টি লাভবার্ডসহ ৬৭ প্রজাতির পশুপাখি হস্তান্তর করা হয়েছে। ফলে টিলাগড় ইকোপার্কটি আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। বিদেশি পশুপাখির ডাকাডাকিতে এখন মুখরিত পার্কটি। তবে এতদিন বিমামূল্যে প্রবেশ করা গেলেও এখন থেকে দর্শনার্থীদের কিছুটা নিয়ন্ত্রণ করার জন্য টিকিটের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ