প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ধামরাইয়ে স্নোটেক্স পোশাক কারখনায় শ্রমিক অসুস্থ, পরিবেশ বিশষজ্ঞদের তদন্ত সমাপ্ত

রাসেল হোসেন, ধামরাই(ঢাকা): ঢাকার ধামরাইয়ের ডুলিভিটায় স্নোটেক্স আউটারওয়্যার লিঃ গার্মেন্ট কারখানায় অজ্ঞাত রোগে শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়ার ঘটনায় ধামরাই উপজেলা মেডিক্যাল টিম,গণস্বাস্থ্য মেডিক্যাল বোর্ড ও মহাখালী রোগতত্ব,রোগ নির্ণয়,রোগ নিয়ন্ত্রক ও রোগ গবেষণা কেন্দ্র এবং পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা পৃথকভাবে তদন্ত করেছেন।

রোববার বিকাল পৌনে ৫টার দিকে প্রথম পর্বের ছুটি দেয়ার আগে কয়েকজন নারি শ্রমিক হঠাৎ অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে মাথা ঘুরে ফ্লোরে পড়ে যান। এরপর তাদের ঘন ঘন বমি হতে থাকে। বিষয়টি বেগতিক বুঝতে পেরে কারখানা কর্তৃপক্ষ ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বেশ কটি সংস্থাকে অবহিত করেন।

এরপর আরএমও ডা.আলহাজ্ব জাকারিয়া আল আজিজের নেতৃত্বে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স,ডা.মোঃ আব্দুল কাদেরের নেতৃত্বে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতাল,ডা.ফারজানা আক্তারের নেতৃত্বে মহাখালী রোগতত্ব,রোগ নির্ণয়,রোগ নিয়ন্ত্রক ও রোগ গবেষণা বোর্ড এবং ডা.আহাম্মেদ সাকিবের নেতৃত্বে পরিবেশ অধিপ্তর সোমবার সকাল থেকে পৃথক পৃথক টিমের মাধ্যমে তারা শ্রমিক অসূস্থ্য হওয়ার কারণ নির্ণয়ে তদন্ত কাজ শুরু করেন। দীর্ঘ তিনদিন বিরতিহীনভাবে তদন্ত কাজ শুরু করার পর বুধবার দুপুর ২টার দিকে এ তদন্ত কাজ সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

তদন্তকারি প্রতিষ্ঠানগুলো স্ব স্ব প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করবেন। উক্ত পোশাক কারখানা থেকে সংগৃহীত আলামত ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে পরীক্ষা নীরিক্ষার জন্য। পরীক্ষার পর এব্যাপারে প্রকৃত তথ্য জানা যাবে কি কারণে শ্রমিকরা আহত হয়েছে।

তবে প্রাথমিক পর্যায়ে তদন্ত টিম দেশের সেরা পোল্ট্রি ফার্ম আফতাব পোল্ট্রি ফার্ম, ব্র্যাক পোল্ট্রি ফার্ম ও কাজী হ্যাচারির ডিম সহ রান্নাবান্নার কাজে ব্যবহৃত পণ্যসামগ্রী পরীক্ষা নীরিক্ষা করেছেন। শুধু তাই নয় কারখানার কিচেন,ডাইনিং ও কারখানার শ্রমিক ফ্লোর নানা ভাবে পরীক্ষা নীরিক্ষা করে সন্তোষ প্রকাশ করেন তদন্ত কজে অংশ নেয়া সংস্থাগুলো।

স্নোটেক্স আউটারওয়্যার লিঃ পোশাক কারখানার ডিজিএম এএইচএম মোঃ কামরুজ্জামান বলেন, কারখনাটি শ্রমিক ও পরিবেশ বান্ধব। আমরা শ্রমিকদের সবচেয়ে বেশী অগ্রাধিকার দেয়া হয়। দেশের পোল্ট্রি ফার্ম ও হ্যাচারি থেকে মুরগী ও ডিম সংগ্যহ করা হয়। শ্রমিক অফিসার সকলেই একই সঙ্গে একই ডাইনিংয়ে একই খাবার খাওয়া হয়। এরপরও শ্রমিকদের অসুস্থ হওয়ার বিষয়টি আমাদেরকে বিচলিত করেছে। তাই আমরা এ অসুস্থ্যতার সঠিক কারণ নির্ণয় করতে বিভিন্ন স্বাস্থ্যসেবা সংস্থা ও পরিবেশ অধিপ্তরকে আহবান করেছি। ইতোমধ্যে বুধবার তদন্ত কাজ শেষ হয়েছে।

ধামরাই উপজেলা মেডিক্যাল টিমের প্রধান আরএমও ডা.আলহাজ্ব জাকারিয়া আল আজিজ বলেন,তদন্ত কাজ সমাপ্ত হয়েছে। আমার প্রতিষ্ঠানের প্রধানের কাছে (ই্উএইচও) কাছে প্রতিবেদন দাখিল করব। গবেষণাগারে আলামত পাঠানো হয়েছে। তবে আতংক হওয়ার ঘটনা এখানে নেই। পরীক্ষা নীরিক্ষার পরই তা আয়নার মত পরিষ্কার হবে।

স্নোটেক্স আউটারওয়্যার লিঃ পোশাক কারখানার সহকারি পরিচালক(অপারেশন) মোঃ জয়দুল হোসেন বলেন,আমরা শ্রমিক ও পরিবেশ বান্ধব।মালিক, অফিসারসহ ও শ্রমিক একই খাবার খাওয়া হয়। আমরা স্বচ্ছ থাকতে চাই। শ্রমিকরা আমাদের সম্পদ। শ্রমিকরা সুস্থ্য না থাকলে উৎপাদন হবেনা। কাজেই শ্রমিক অসুস্থ্য হওয়ার কারণ নির্ণয় করতে বিভিন্ন স্বাস্থ্য সংস্থা ও পরিবেশ বিশেষজ্ঞদের ডাকা হয়েছে। তদন্ত কাজে তারা প্রাথমিকভাবে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন তদন্তকারি সংস্থাগুলো।