প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দুই কার্যদিবস পর শেয়ারবাজরে মূল্য সংশোধন

মাসুদ মিয়া : দেশের শেয়ারবাজার টানা দুই কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর বুধবার সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতার মধ্যে দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে।বুধবার প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মূল্যসূচকের পতনের সঙ্গে কমেছে লেনদেনের পরিমাণও।

এদিকে বুধবারের দর পতনকে বাজার সংশ্লিষ্টরা মূল্য সংশোধন হিসাবে দেখছেন। সংশ্লিষ্টরা বলেন, টানা দর বৃদ্ধি বাজারের জন্য ভালো না কমাও ভালো না। এর আগে গত সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছ থেকে পাওয়া টাকা পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের শর্তে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ক্যাপিটাল গেইন ট্যাক্স ছাড় দিয়েছে এবং ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) বন্ড বিক্রি করে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ শুরু করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে গত সোম ও মঙ্গলবার ঊর্ধ্বমুখীতার দেখা পায় শেয়ারবাজার।

ডিএসইর একাধিক সদস্য জানান, ব্রোকারেজ হাউজগুলো বিনিয়োগ করলেও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর একটি অংশ শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে নিস্বক্রিয় রয়েছে। যা বিনিয়োগকারীদের আস্থায় নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। যে কারণে বাজারে একাধিক সুখবর আসলেও তা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারছে না। গতকাল মূল্যস‚চক ও লেনদেন পতনের পাশাপাশি ডিএসইতে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১১১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ১৮৯টি প্রতিষ্ঠান। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭টির দাম।

এদিন বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের এমন দাম কমায় ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ১৪ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ২৮৪ পয়েন্টে নেমে এসেছে। অপর দুটি ম‚ল্যস‚চকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ স‚চক আগের দিনের তুলনায় ৩ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ২২২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ১ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮৭৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আজ ডিএসইতে মোট ৫১৪ কোটি ৭১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৫৫২ কোটি ৪৯ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসাবে গতকাল লেনদেন কমেছে ৩৭ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। টাকার অংকে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে কেপিসিএলের শেয়ার। এদিন কোম্পানিটির ৪২ কোটি ২১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালসের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১৯ কোটি ৩৬ লাখ টাকার। আর ১৩ কোটি ২৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে সামিট পাওয়ার।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক ম‚ল্যস‚চক সিএসসিএক্স ২৩ পয়েন্ট কমে ৯ হাজার ৮১৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ২০ কোটি ৪২ লাখ টাকার শেয়ার। লেনদেন হওয়া ২৩৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের মধ্যে ৮২টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ১৩৩টির, আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ