প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজনীতি করতে হলে চাড়াল-মুচির সঙ্গেও আলোচনায় বসতে হয়: কাদের সিদ্দিকী

জিয়াউদ্দিন রাজু : কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বকঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, রাজনীতিতে শেষ কথা বলতে কিছু নেই। রাজনীতি করতে হলে চাড়াল-মুচি তাদের সাথেও আলোচনায় বসতে হয়। যাদের কাছ থেকে আজকে পোড়াগন্ধ আসছে তার সাথেও আলোচনা করতে হয় এবং শেখ হাসিনা সেই কাজটিই করছেন।

বুধবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর মতিঝিলে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সংবাদ সম্মেলনে দলের সভপিতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী এ কথা জানান।

সরকার ডাকলে সংলাপে যাওয়ার কথা বিবেচনা করবে বলেও জানান কাদের সিদ্দিকী। বঙ্গবীর বলেন, সংলাপের মতো ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত ও সাহসী পদক্ষেপ বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা বলেই নিতে পেরেছেন।

তিনি আরো জানান, আগামী ৩ নভেম্বর জেল হত্যা দিবসের আলোচনা অনুষ্ঠানেই পরিস্কার করা হবে যে আসন্ন নির্বাচনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ কী পদক্ষেপ নেবে বা কোন জোটে যাবে।

সংলাপের জন্য নিজের প্রচেষ্টার কথা তুলে ধরে এই নেতা বলেন, সংলাপের জন্য আমি ফুটপাতে ৬৪ দিন কাটিয়েছি এবং ৩০৮ দিন আমি ঘরের বাইরে ছিলাম। ফুটপাতে যখন ছিলাম তখন এই সরকারেরই সন্ত্রাসীরা টয়লেটে ব্যবহার করার জন্য আমার বদনাটাও চুরি করে নিয়েছে।

দেশে একটি সম্মানজনক রাজনৈতিক সমাজ চাই, স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি চাই। আজকে শ্রমিকের মুখে কালি মাখা হলো। এই কালি শ্রমিকের মুখে মাখেনি এটা আসলে দেশ ও জাতির মুখে মেখেছে। তিনি বলেন, প্রতি মুহুর্তে রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট পরিবর্তন হচ্ছে। সংলাপ ডাকার আগে দেশে অস্থিরতা ছিল। এখন তা অনেকটাই কেটে গেছে। এই উদ্যোগ এবং পদক্ষেপ মাইলফলক হিসেবে বাংলাদেশের ইতিহাসে লেখা থাকবে বলেও জানান বঙ্গবীর।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান বীর প্রতীক, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম দেলোয়ার, সহসভাপতি আমিনুল ইসলাম তারেক। সম্পাদনা: মাহবুব

সর্বাধিক পঠিত