প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

১০ ডিসেম্বরের মধ্যে স্কুলগুলোকে পরীক্ষা শেষ করার নির্দেশ ইসির

অনলাইন ডেস্ক : আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে দেশের সব স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষা শেষ করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ।

তিনি বলেন, স্কুলগুলোতে ভোটকেন্দ্র থাকবে। তাছাড়া স্কুলশিক্ষকরা ভোটের দিন প্রিজাইডিং ও পোলিং কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করবেন। এসব কারণেই ডিসেম্বরের ১০ তারিখের মধ্যে সব স্কুলের পরীক্ষা যেন শেষ হয়, সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দিয়েছি আমরা।

বুধবার ইসি সচিবালয়ের সম্মেলন কক্ষে ইসি সচিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

এসময় ইসি সচিব বলেন, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে। নির্বাচন সামনে রেখে আগামী দুয়েকদিনের মধ্যেই বিশেষ অধ্যাদেশ জারির মাধ্যমে গণপ্রতিনিধি আদেশ (আরপিও) সংশোধন করা হবে। তিনি বলেন, আরপি সংশোধনীতে ইসির প্রস্তাব এরই মধ্যে মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পেয়েছে। কিন্তু এখন তো সংসদ নেই। তাই বিশেষ অধ্যাদেশের মাধ্যমে আরপিও সংশোধন করা হবে।

এর আগে, ইসি সচিবের সভাপতিত্বে সকাল ১১টায় শুরু হয় এই আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক। সরকারের বিভিন্ন মস্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কমিশন নির্বাচনের প্রাকপ্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে এবং বৈঠক থেকে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়কে ইসির পক্ষ থেকে কিছু নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানান ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ।

তিনি বলেন, নির্বাচনে বিদেশি পর্যবেক্ষকরা যেন সহজে বাংলাদেশের ভিসা পেতে পারেন, সে বিষয়ে আমরা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা নিতে বলেছি। এছাড়া ঋণখেলাপি ও বিলখেলাপি কারা আছেন, তাদের তথ্য যেন বাংলাদেশ ব্যাংকসহ সংশ্লিষ্ট আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো মনোনয়নপত্র দাখিলের আগেই রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে জমা দেন, সে নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে, তফসিল ঘোষণার পর এবং নির্বাচনের দিনও যেন পর্যাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া যায়, সে বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে বলে জানান ইসি সচিব।

নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার সাত দিনের মধ্যে সব নির্বাচনী এলাকার ব্যানার-পোস্টার-ফেস্টুনসহ সব ধরনের নির্বাচনী প্রচারণামূলক সরঞ্জাম সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানান হেলালুদ্দীন আহমেদ। এছাড়া, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে সন্ত্রাসী, অস্ত্রধারীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে বলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বিভিন্ন দলের রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে— এ প্রসঙ্গে কোনো সিদ্ধান্ত বা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে কিনা, জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা নিয়ে আলোচনা হয়নি।

ইসি সচিব জানান, এবারের নির্বাচনে প্রার্থীদের আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়নি। তিনি বলেন, এমন অনেকেই প্রার্থী হবেন, যাদের আয়কর শনাক্তকরণ নম্বর (টিন) নেই। কৃষক থাকতে পারেন, তাদের তো টিন নেই। তারাও প্রার্থী হতে পারেন। তবে যাদের টিন নম্বর আছে, তারা সেটা জমা দেবেন। এটা বাধ্যতামূলক করা হয়নি।

আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে ৪১ হাজার ভোটকেন্দ্রে মেরামত ও সংস্কার এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের ৪১টি দুর্গম কেন্দ্রে হেলিকপ্টারযোগে নির্বাচনী সরঞ্জাম পৌঁছানোর বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হয়েছে। পাশপাশি, ডিসেম্বর-জানুয়ারি মাসের আবহাওয়া কেমন থাকবে, সে বিষয়টিও নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করতে আবহাওয়া অধিদফতরকে বলা হয়েছে। হবে, এটি নিয়ে

ইসি সচিব জানান, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়কে যেসব নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, তারা সেগুলো পরিপালন করবে বলে বৈঠকে জানিয়েছে। সারাবাংলা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ