প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে ইসি

অনলাইন ডেস্ক : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি তুলে ধরে বাস্তবায়নের নির্দেশনা দিতে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক ডেকেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

বুধবার বেলা ১১টায় সংস্থাটির সভাকক্ষে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে বৈঠক শুরু হয়েছে।

বৈঠকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা, চার নির্বাচন কমিশনার, ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, মন্ত্রণালয়/বিভাগের প্রতিনিধিরা উপস্থিতি আছেন।

বৈঠকের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনে আমাদের প্রস্তুতি তুলে ধরে তা বাস্তবায়নের জন্য সকল মন্ত্রণালয় ও বিভাগকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হবে। এ ক্ষেত্রে বিজি প্রেস, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হবে।

বৈঠকের এজেন্ডায় রাখা হয়েছে- ভোটকেন্দ্রের স্থাপনা মেরামত ও ভৌত অবকাঠামো সংস্কার, পার্বত্য/দুর্গম এলাকায় হেলিকপ্টারে নির্বাচনী মালামাল পরিবহন এবং ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের ভোটকেন্দ্রে আনা-নেওয়ার বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ, নির্বাচনী প্রচার ইত্যাদি বিষয়ে প্রচার মাধ্যম কর্তৃক ব্যবস্থা গ্রহণ।

এছাড়া দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষক নিয়োগ, পোস্টাল ব্যালটে ভোট প্রদানের বিষয়ে সহযোগিতা, নির্বাচনে শান্তি-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, ঋণখেলাপি সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ সংকলন ও প্রদান বিষয়ক কর্মপরিকল্পনা প্রস্তুত, নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালনের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ, বার্ষিক ও পাবলিক পরীক্ষার সময়সূচি নির্ধারণ, দৈনন্দিন আবহাওয়ার পূর্বাভাস সংক্রান্ত তথ্য পর্যালোচনা প্রভৃতি বিষয়গুলোও এজেন্ডায় রয়েছে।

আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকের পর ১ নভেম্বর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করবে নির্বাচন কমিশন। ইসির পরিকল্পনা অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের পর নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা নিয়ে বৈঠকে বসবে কমিশন।

নির্বাচন কমিশনার ব্রি. জে. শাহাদাৎ হোসেন চৌধুরী জানিয়েছেন, ৩ ও ৪ নভেম্বর আমরা বৈঠকে বসবো। ইতিমধ্যে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ৩ নভেম্বর কমিশন বৈঠক আহ্বান করেছেন। কমিশন বৈঠকের পর জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে সাধারণ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করার কথা রয়েছে।

২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি প্রথম অধিবেশন শুরু হয়েছিল বিধায় দশম জাতীয় সংসদের মেয়াদ পূর্তি হচ্ছে ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারি। সংবিধান অনুযায়ী, সংসদের মেয়াদ পূর্তির পূর্বের নব্বই দিনের মধ্যে নির্বাচন সম্পন্ন করতে বাধ্য নির্বাচন কমিশন। সে মোতাবেক নভেম্বরের প্রথম দিকেই তফসিল দিয়ে ডিসেম্বরের দ্বিতীয়ার্ধে ভোটগ্রহণের পরিকল্পনা করছে সংস্থাটি। সূত্র : বাংলানিউজ