প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পিটসবার্গে শোক জানাতে এসে জনরোষে ট্রাম্প

সান্দ্রা নন্দিনী : যুক্তরাষ্ট্রের পিটসবার্গের হামলার শিকার ইহুদি উপাসনালয় ‘ট্রি অব লাইফ’ সিনাগগ পরিদর্শন ও শোক জানাতে এসে জনবিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। মঙ্গলবার সিনাগগে ট্রাম্প পৌঁছানোমাত্র সেখানে আগে থেকে অবস্থান নেওয়া ইহুদি সম্প্রদায়ের ২ হাজারেরও বেশি বিক্ষোভকারী সমস্বরে চিৎকার করে বলতে থাকেন, ‘প্রেসিডেন্ট আপনার প্রতি ঘৃণা জানাই, আমরা আপনাকে এখানে আসার আমন্ত্রণ জানাইনি, এখনই আমাদের রাজ্য ছাড়ুন।’ তারা আরও স্লোগান দিতে থাকেন, ‘ট্রাম্প, এখনই শে^তাঙ্গ-জাতীয়তাবাদ থেকে বেরিয়ে আসুন।’ এছাড়া, তাদের প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিলো, ‘মৃত মানুষেরা আমেরিকাকে মহান বানানোর ক্ষমতা রাখে না।’

সেসময় ট্রাম্পের সঙ্গে মার্কিন ফার্স্টলেডি মেলানিয়া, ট্রাম্প কন্যা ইভানকা ও জামাতা জেরাড কুশনার উপস্থিত ছিলেন। এখানে বিশেষভাবে উল্লেখ্য, হোয়াইট হাউজের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা ট্রাম্প জামাতা কুশনার একজন ইহুদি এবং আরেক উপদেষ্টা কন্যা ইভানকাও তাকে বিয়ে করার সময় ইহুদি মতবাদ গ্রহণ করেছেন। এছাড়া, দেশটির অর্থমন্ত্রী স্টিভেন ম্যুচিন যিনি নিজেও একজন ইহুদি, ট্রাম্পের সঙ্গে সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

শনিবার সিনাগগে বিশেষ অনুষ্ঠান চলাকালে প্রার্থনারত ইহুদিদের ওপর হামলায় ১১ জন নিহত হন। ৪৬ বছর বয়সী হামলাকারী রবার্ট বোয়ার্স সেসময় চিৎকার করে বলছিলেন, ‘সব ইহুদিকে মরতে হবে’। ইহুদি মতবাদে বিশ^াসীরা তাই প্রথম থেকেই হামলার জন্য ট্রাম্পকে দায়ী করে আসছেন।

এর আগে, রোববার যুক্তরাষ্ট্রের প্রগতিশীল ইহুদি আন্দোলন সংগঠন ‘বিহাইন্ড দ্য আর্ক’ ৭০ হাজার মানুষের স্বাক্ষর সম্বলিত এক চিঠিতে জানায়, শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ না করা পর্যন্ত তারা ট্রাম্পকে স্বাগত জানাবেন না। চিঠিতে সরাসরি ট্রাম্পকে সম্বোধন করে বলা হয়, ‘গত তিনবছর ধরে আপনার বক্তব্য ও নীতি একটি ক্রমবর্ধমান শ্বেতাঙ্গ-জাতীয়তাবাদী আন্দোলনকে উৎসাহিত করছে।’ এতে আরও বলা হয়, ‘আপনি নিজে এই খুনিকে ‘শয়তান’ বললেও শনিবারের সহিংসতা আপনার কারণেই হয়েছে।’

এছাড়া, চারজন শীর্ষ ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকান নেতা পিটসবার্গে ট্রাম্পের সফরসঙ্গী হতে হোয়াইট হাউজের আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করেন। বিবিসি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ