প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নন্দীগ্রামে দুর্বৃত্তদের ছুড়ে মারা দাহ্য পদার্থে পুড়ে যাওয়া গৃহবধুর অবস্থার অবনতি

আরএইচ রফিক, বগুড়া : বগুড়ার নন্দীগ্রামে দূর্বৃত্তের ছুড়ে মারা দাহ্য পদার্থে পুড়ে যাওয়া গৃহবধু রিমা খাতুন (১৮) এর অবস্থা এখন গুরত্বর । এদিকে ঘটনাটি রহস্যজনক কারণে প্রথমদিকে চেপে যাওয়ার চেষ্টা করা হলেও সোমবার রাতে পুলিশ পর্যন্ত পৌছেছে । ঘটনাটি ঘটেছে গত রবিবার রাতে । সে নন্দীগ্রাম পৌরসভাধীন ২নং ওয়ার্ডের ফোকপাল গ্রামের রাকিব হাসানের স্ত্রী। দগ্ধ অবস্থায় তাকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। সোমবার রাতে নন্দীগ্রাম সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিৎ করেন।

জানা গেছে, রবিবার দুপুর আনুমানিক সাড়ে ১২টার দিকে গৃহবধু রিমা খাতুন শয়ন ঘরে মাথায় চিরুনি করতেছিল। এমতাবস্থায় সে তার পিঠে দাহ্যজাতীয় জিনিষ এস পড়ে আগুন জ্বলে উঠতে দেখে। তখন সে চিৎকার করলে তার পরিবারের লোকজন এসে আগুন নিভিয়ে দেয়। পরে তাকে দগ্ধ অবস্থায় স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। এদিকে স্থানীয় একটি মহল বিশেষের কারনে বিষয়টি প্রথম দিকে চেপে যেতে বলা হলেও পরে তার প্রকাশ করা হয় ।

গৃহবধু রিমা খাতুনের শ্বশুর আক্কাস আলী জানায়, আমার পুত্রবধু ঘরেই ছিল। কেবা কাহারা শয়ন ঘরের জানালা দিয়ে তার শরীরে আগুন ছুড়ে মারে। এতে তার পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ ঝলসে গেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য সোমবার রাতে রিমা খাতুনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। নন্দীগ্রাম সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পলিশ সুপার আনোয়ার হোসেনের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, ওই গৃহবধুর শরীরে দাহ্য পদার্থ নিক্ষেপ করা হয়েছে। সে রহস্য উৎঘাটনের চেষ্টা চলছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ