প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজনৈতিক সঙ্কট উত্তরণে রাষ্ট্রপতি বরাবর বাম গণতান্ত্রিক জোটের স্মারকলিপি পেশ

রফিক আহমেদ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগেই জাতীয় সংসদ ভেঙে দেওয়া, বর্তমান সরকার পদত্যাগ করে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ তদারকি সরকার গঠন, জনগণের আস্থাহীন বর্তমান নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন, সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্ব ব্যবস্থা প্রবর্তনসহ নির্বাচন ব্যবস্থার আমূল সংস্কার ও রাজনৈতিক সঙ্কট নিরসনে রাষ্ট্রপতি কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

বুধবার প্রেসক্লাবের সামনের সমাবেশ শেষে বাম নেতৃবৃন্দ মিছিল নিয়ে বঙ্গভবনের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়ে পল্টন হয়ে দৈনিক বাংলার মোড়ে পৌঁছালে পুলিশ বাঁধা উপেক্ষা করে বঙ্গভবনে গিয়ে রাষ্ট্রপতি বরাবর স্মারকরিপি পেশ করেন।

নির্বাচনকেন্দ্রিক চলমান সঙ্কটের প্রতি দিক নির্দেশ করে বাম জোটের নেতৃবৃন্দ রাষ্ট্রপতিকে বলেন, আপনি দেশপ্রেম ও নৈতিক ক্ষমতা বলেন, এই গভীর সঙ্কট উত্তরণে অবিলম্বে কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ করবেন। দেশের এই ক্রান্তিকালে আপনার যুক্তিযুক্ত বলিষ্ঠ ভ‚মিকার গুরুত্ব অপরিসীম ও সুদূরপ্রসারী তাৎপর্য বয়ে আনতে পারে।

সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, চলমান সঙ্কট থেকে উত্তরণের জন্য সরকারকে নমনীয় হতে হবে। সরকারকে অবাধ, নিরপেক্ষ, গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের গণদাবি মেনে নিতে হবে। গণদাবি অগ্রাহ্য করা হলে উদ্ভ‚ত পরিস্থিতির দায় সরকারকেই নিতে হবে। তিনি সরকারি দলের নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে বলেন, সংবিধানেই বলা আছে কিভাবে সংবিধান সংশোধন করতে হয়। জাতীয় সংসদ এখনো কার্যকর রয়েছে। তিনি সংসদের অধিবেশন আহ্বান করে অষ্টাদশ সংশোধনীর মাধ্যমে নির্বাচনকালীন সরকার গঠন ও তার কার্যক্রম সংবিধানে অন্তর্ভুক্তির আহ্বান জানান।

গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক সাইফুল হক সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, বিরোধী দলের উপর নির্যাতন-নিপীড়ন বন্ধ করে সংলাপে বসুন। সংসদ ভেঙে দিয়ে দল-নিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন তদারকি সরকারের অধীনে নির্বাচনের আয়োজন করুন। তিনি বলেন আরেকটি একতরফা নির্বাচনের ভার জাতি বহন করতে পারবে না। দেশকে গভীর সঙ্কটের মুখে ঠেলে দিবেন না। তিনি সরকারকে লোক দেখানো প্রচার সর্বস্ব সংলাপের পরিবর্তে নির্বাচনকেন্দ্রিক সঙ্কট উত্তরণে কার্যকরী রাজনৈতিক উদ্যোগ নিতে আহ্বান জানান।

জোটের সমন্বয়ক বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হকের সভাপতিত্বে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য আরও বক্তব্য রাখেন বজলুর রশীদ ফিরোজ, জোনায়েদ সাকি, মানস নন্দী, অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার, মোশরেফা মিশু, হামিদুল হক। উপস্থিত ছিলেন মো. খালেকুজ্জামান ও মোশাররফ হোসেন নান্নু। সভা পরিচালনা করেন সাজ্জাদ জহির চন্দন।

সম্পাদনা-শাহীন চৌধুরী

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ